আখের বিকল্প সুগারবিট চাষ

80
Spread the love

16-06-2015-084058Untitled-12_2মোঃ তোফায়েল ইসলাম ঠাকুরগাঁও অফিস : বিভিন্ন দেশে সুগারবিট থেকে চিনি উৎপাদন করা হয়। তাই দেশের চিনিকল রক্ষা ও সংকট মোকাবিলায় আখের বিকল্প সুগারবিট চাষ এবং গুড় উৎপাদনে ৩ বছরের পাইলট প্রকল্পে সফল হয়েছে ঠাকুরগাঁও আঞ্চলিক ইক্ষু গবেষনা কেন্দ্র। সুগারবিট প্রান্তিক কৃষক পর্যায়ে চাষের পাশাপাশি আগামী ২০১৭-১৮ সালের মাড়াই মৌসুমে ঠাকুরগাঁও চিনিকল এই বিট থেকে চিনি উৎপাদন করবে বলে আশা প্রকাশ মিল কর্তৃপক্ষের। ২০১১-১২ অর্থ বছরে ঠাকুরগাঁও আঞ্চলিক ইক্ষু গবেষনা কেন্দ্রে আখের বিকল্প সুগারবিট চাষ ও চিনি উৎপাদনের
গবেষনা শুরু হয়। ৩বছরের পাইলট প্রকল্পের মেয়াদ শেষে চুড়ান্ত ভাবে সফলতা পেয়েছেন বলে দাবি গবেষকদের। আখে যেখানে চিনি থাকে ৭/৮ শতাংশসেখানে সুগারবিটে চিনির পরিমাণ প্রায় ১৮ শতাংশ পাওয়া গেছে। ইতোমধ্যে স্থানীয় ভাবে এই সুগারবিট থেকে গুড় তৈরি করে প্রান্তিক চাষিদের প্রদর্শনী ও চাষাবাদের কলাকৌশল নিয়েও প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। মাত্র ৫ থেকে ৬ মাসেই সুগারবিট উৎপাদন করে মিলে সরবরাহ করে আর্থিক ভাবে লাভবান হবেন কৃষকরা এদিকে সুগারবিট চাষাবাদেও কৃষকদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ দেখা গেছে। আখচাষিরা জানান, সুগার বিট চাষের কলাকৌশল সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দিয়েছি। সুগার বিটের সাথে অন্যান্য সাথী ফসল করা যায়। এছাড়াও আখের সাথে সুগার বিটও চাষ করা যায় এলাকার অনেক কৃষক আখের বদলে সুগারবিট চাষ করার আগ্রহ দেখা গেছে। জেলা আখচাষি সমিতির সভাপতি জানান  সুগারবিট চাষ করে এলাকার চাষিরা র্অপ সময়ে প্রচুর টাকা আয় করতে পারবে। ইতোমধ্যে কয়েকশ কৃষক প্রশিক্ষণ নিয়েছে। বিশেষ করে ঠাকুরগাঁও,পঞ্চগড় ও দিনাজপুর জেলা শীত দীর্ঘ সময় থাকে এ এলাকায় সুগারবিট চাষের উপযোগী। ইতোমধ্যে পরীক্ষাগারে আমরা সুগারবিট চাষ ও গুড় উৎপাদনে সফল হয়েছি। সুগারবিট সম্ভাবনাময় ফসল। এটি চাষের মাধ্যমে দেশের চিনি ঘাটতি মোকাবিলা সম্ভব। সুগার বিট থেকে চিনি উৎপাদনে ঠাকুরগাঁও সুগার মিলকে পাইলট প্রকল্পের আওতায় এনে  সরকার ১শ ১৯ কেটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। আগামী ২০১৭ – ১৮ সালের মাড়াই মৌসুমে ঠাকুরগাঁও সুগার মিল সুপারবিট সংগ্রহ করে আখের পাশাপাশি চিনি উৎপাদন করবে বলে আশা প্রকাশ করেন মিল কর্তৃপক্ষ


Spread the love