আটঘরিয়ায় তিন হাজার কেজি মাছের পোনা অবমুক্ত করলেন ভূমিমন্ত্রী

83
Spread the love

unnamed32নিজস্ব প্রতিনিধি : ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বাঙালিরা থাকবে মাছে ভাতে। তিনি বলেন, যারা জেলে, তাঁতী, কৃষক ও দরিদ্র তারাই মুক্ত বিলের মাছ ধরবে, বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করবেন। আর যারা চাঁদাবাজ, সন্ত্রাসী, লুটেরা, জোর করে মাছ লুট করতে চায় তাদেরকে জালের মধ্যে আটকে রেখে থানায় খবর দিবেন। তিনি সন্ত্রাসী বা লুটেরারা যে দলেরই হোক, তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে নির্দেশ দেন। গতকাল রাতে পাবনার আটঘরিয়ার লক্ষ্মীপুর ইউনিয়নের চত্রার বিল ও মাঝপাড়া ইউনিয়নের দলগাড়ি বিলে ৩ হাজার কেজি দেশীয় মাছের পোনা অবমুক্তকালে ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ সংশ্লিষ্ট এলাকার মৎস্যজীবীদের উদ্দেশে এসব কথা বলেন। মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে দরিদ্র মৎস্যজীবী ও স্থানীয় মানুষের জন্য সরকারি অর্থায়নে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে মাছগুলো অবমুক্ত করা হয়। চত্রা বিলে ৫ লাখ টাকা ব্যয়ে দু হাজার দুশ পোনা এবং দলগাড়ি বিলে ২ লাখ টাকা ব্যয়ে ৮০০ মাছের পোনা অবমুক্ত করা হয়। এ পোনাগুলো থেকে ৭ থেকে ৮ কোটি টাকার মাছ আহরণ করা সম্ভব হবে বলে বিশেষজ্ঞগণ অভিমত ব্যক্ত করেন। এর আগে মন্ত্রী আটঘরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় প্রাঙ্গণে আটঘরিয়ার ১ হাজার ৪০১ জন জেলের মাঝে নিবন্ধন ও পরিচয়পত্র প্রদান করেন। মৎস্যজীবীদের নিবন্ধন ও পরিচয়পত্র প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ভূমি মন্ত্রী শরীফ বলেন, জেলেদের উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত আন্তরিক রয়েছেন। তিনি বলেন, সরকারি জলাশয়, জলমহাল ও বিল শুধুমাত্র মৎস্যজীবী বা জেলে সম্প্রদায়ের সমন্বয়ে গঠিত সমবায় সমিতিকে ইজারা দেওয়া হয়। প্রকৃত মৎস্যজীবী নির্ণিত হবে নিবন্ধন ও পরিচয়পত্রের মাধ্যমে। তিনি বলেন, এই পরিচয়পত্র জেলে ও তার পরিবারের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের সকল জেলেদের নিবন্ধনের মাধ্যমে মৎস্য উপকরণ বিতরণ করা হবে। তিনি বলেন, জেলেদের জন্য সরকারের সুযোগ সুবিধাদি পরিচয়পত্রধারী মৎস্যজীবীরা ভোগ করবেন। উল্লেখ্য, সারাদেশে এ পর্যন্ত প্রকৃত মৎস্যজীবী পরিচয়পত্র পেয়েছেন ১২ লাখ ৮০ হাজার জেলে পরিবার। উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলীমুন রাজীবের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন পাবনা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আবদুল জলিল, আটঘরিয়া উপজেলা আ.লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম রতন, ঈশ্বরদী উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মেহজাবিন শিরিন পিয়া, আটঘরিয়া উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আমেনা আক্তার নীলা। অনুষ্ঠানটির সঞ্চালক ছিলেন আটঘরিয়া উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী ওয়ারেছ উদ্দীন।


Spread the love