কক্সবাজারে হানিফ বাস- মাইক্রোবাস সংঘর্ষ : নিহত ৩ আহত ৮

103
Spread the love

Cox Picআমিনুল কবির,কক্সবাজার : কক্সবাজার-চট্টগ্রাম মহাসড়কের জানারঘোনা এলাকায় যাত্রীবাহী মাইক্রোবাস ও হানিফ পরিবহনের সংঘর্ষে তিন জন মারা গেছে। তৎমধ্যে মিন্টু বড়–য়া মাইক্রোবাসের চালক ও স্বপনা দাশ মাইক্রোবাসের যাত্রী নিহত হন। এসময় অন্তত ৮ জন আহত হয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ৩০ অক্টোবর শুক্রবার ভোর ৬ টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, কক্সবাজার মুখী যাত্রীবাহী হানিফ পরিবহন (ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-৬৬৫১) ও চট্টগ্রাম মুখী মাইক্রোবাস (চট্টমেট্রো-চ-১১-৩১১২) কক্সবাজার ঝিলংজা জানারঘোনা পর্যন্ত পৌঁছলে গাড়ির দুটির সংঘর্ষ হয়। এসময় মাইক্রোবাসে থাকা অন্তত ১০ জন যাত্রী আহত হন। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মিন্টু বড়–য়া ও স্বপনা দাশের মৃত্যু হয়। মিন্টু বড়–য়া চকরিয়া সদর এলাকার বেদু বড়–য়ার ছেলে এবং স্বপনা দাশ কক্সবাজার শহরের গাড়ি মাঠ এলাকার মৃদুল দাশের স্ত্রীর।
এঘটনায় আশংকাজনক অবস্থায় কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে, কক্সবাজার শহরের গাড়ির মাঠ এলাকার মৃদুল দাশ, তার ছেলে কার্তিক, সদর উপজেলা ইসলামপুর এলাকার নুর আহমদের ছেলে আবুল কাশেম, মানিকগঞ্জের মোতালেবের ছেলে রিপন, চকরিয়া মাইজঘোনা এলাকার আবুল কালামের ছেলে নাছির উদ্দিন, টেকনাফ হোয়াইক্যং ইউনিয়নের মোস্তফা কামালের ছেলে রিয়াজ উদ্দিন ও চকরিয়া আজিজ নগর এলাকার হানিফ। আহত ও নিহতরা সবাই মাইক্রোবাসের যাত্রী। তবে হানিফ পরিবহনের কেউ আহত বা নিহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।
কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আসলাম হোসেন জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম হাসপাতালে প্রেরণ করেছেন। এরমধ্যে নিহত চালক ও মহিলা যাত্রীর মৃতদেহ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নিহত স্বপ্না দাশের স্বামী মিন্টু দাশ মৃত্যুবরণ করেন। দুর্ঘটনার শিকার গাড়িটি জব্দ রয়েছে।


Spread the love