কানাইঘাটে যৌথ বাহিনীর চিরুনী অভিযানে বিএনপি-জামায়াতের ১৪ নেতাকর্মী আটক

53
Spread the love

2800কানাইঘাট (সিলেট) প্রতিনিধি : সিলেটের কানাইঘাট উপজেলা জুড়ে আবারো বিরোধী জোটের নেতাকর্মীদের ধর পাকড় শুরু হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার কানাইঘাট উপজেলার বিভিন্ন এলাকার বাসা বাড়ীতে চিরুনী অভিযান চালিয়ে বিএনপি-জামায়াতের ১৪ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে যৌথ বাহিনী। হঠাৎ করে কানাইঘাট উপজেলা জুড়ে যৌথবাহিনীর অভিযানের ফলে বিএনপি-জামায়াত শিবিরের শত শত নেতাকর্মীরা বাড়ী ঘর ছেড়ে পালিয়ে অন্যত্র আশ্রয় নিচ্ছেন। কানাইঘাট থানার ওসি মোঃ হুমায়ুন কবির জানিয়েছেন, উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে নাশকতামূলক কর্মকান্ডের সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করতে বিশেষ অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সিলেটের এডিশনাল পুলিশ সুপার (উত্তর) সুজ্ঞান চাকমা, র‌্যাব-৯ এর কমান্ডার এএসপি মাঈনুদ্দীন চৌধুরী ও সিলেট উত্তর সার্কেলের এএসপি ধীরেন্দ্র মহাপাত্রের নেতৃত্বে উপজেলার বিভিন্নস্থানে বিপুল সংখ্যক বিজিবি, র‌্যাব ও পুলিশ যৌথভাবে এ অভিযান চালায়। গ্রেফতারকৃত প্রত্যেকের বিরুদ্ধে নাশকতামূলক কর্মকান্ডের সাথে স¤পৃক্ততা থাকার সন্দেহে তাদের আটক করা হয়েছে। বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা রয়েছে বলেও তিনি জানান। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে রয়েছেন, উপজেলা যুবদলের সাবেক আহ্বায়ক শিক্ষক সাজ উদ্দিন সাজু, ৩নং দিঘীরপাড় পূর্ব ইউপি সদস্য খসরুজ্জামান, আলহেরা দাখিল মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাও. তাজুল হক, নুরুল হোসেন, এখলাছুর রহমান, নিজাম উদ্দিন, গোলাম খালিক, প্রবাসী নাজিম উদ্দিন, বিএনি নেতা ফার্নিচার ব্যবসায়ী মখলিছুর রহমান, সেলিম উদ্দিন, শিবির নেতা নজরুল ইসলাম, ব্যবসায়ী আব্দুল কাদের, কামরুল ইসলাম। এদিকে, উপজেলা বিএনপির সভাপতি মামুনুর রশিদ মামুন ও জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির মাওলানা আব্দুল মালিক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাতে যৌথ বাহিনী তাদের দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের বাড়ী বাড়ী হানা দিয়ে নির্বিচারে শিক্ষক, ব্যবসায়ী, জনপ্রতিনিধিদের গ্রেফতার করে। যাদের আটক করা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে কোন মামলা পর্যন্ত নেই। অথচ সরকারী দলের ছাত্র সংগঠনের সন্ত্রাসের কারণে কানাইঘাট আজ সন্ত্রাসের জনপদে পরিণত হয়েছে। অতচ তাদেরকে গ্রেফতার করা হচ্ছে না।


Spread the love