কার্নিভালের মধ্য দিয়ে কক্সবাজারের নতুন দ্বার উন্মোচিত হবে- অতিরিক্ত সচিব

218
Spread the love

Cox Pic -2আমিনুল কবির, কক্সবাজার : পর্যটন রাজধানী কক্সবাজারে আগামী ১৩ নভেম্বর শুরু হচ্ছে ‘মেগা বীচ কার্ণিভ্যাল ডেস্টিনেশন-২০১৫ শীর্ষক তিনদিন ব্যাপী পর্যটন উৎসব। এই উৎসবে প্রচুর সংখ্যক দেশি ও বিদেশী পর্যটকের সমাগম ঘটানো হবে। তিনদিনের এই উৎসবে রোড শো, ম্যারাথন, সৈকতে ঘুড়ি উড়ানো, পাহাড়ী পণ্যের ষ্টল, নানা খাদ্যের পসরা, আকর্ষণীয় স্থানগুলোতে ঘুরে বেড়ানো, নানা আইটেমের খেলাধুলাসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকবে। বুধবার বিকাল ৩ টায় কক্সবাজারে আয়োজিত এক প্রস্তুতি সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক মোঃ আলী হোছাইন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বেসামরিক পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন ও পর্যটন) মোঃ রফিকুজ্জামান এবং বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী (অতিরিক্ত সচিব) আখতারুজ জামান খান কবির। সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির সদস্যরা বক্তব্য রাখেন।
সভায় পর্যটন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব রফিকুজ্জামান জানান, গত বছর দেশের সার্বিক পরিস্থিতির জন্য এই বর্নাঢ্য উৎসব পালন করা হয়নি। এখন থেকে প্রতিবছর একই সময়ে পর্যটন উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। বিদেশী পর্যটকদের বছরে অন্তত এই উৎসব উপলক্ষে বাংলাদেশ মুখী করার জন্য নানা পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এ জন্য রাজধানী ঢাকায় বিদেশী দূতদের এই উৎসবের বিস্তারিত জানিয়ে বিদেশী ভ্রমণকারীদের আমন্ত্রণ জানানোর পদক্ষেপ নেয়া হবে। সেই সাথে বাংলাদেশের দূতাবাস গুলোর মাধ্যমেও প্রচারণা চালানো হবে বিদেশী পর্যটকদের আকৃষ্ট করার জন্য। পর্যটন মৌসুমের শুরুতে আয়োজিত এই উৎসবে যোগদানে উৎসাহিত করার জন্য কক্সবাজারে হোটেল-মোটেলগুলোতে ব্যাপক ছাড়ের প্রস্তাবও দেয়া হয়। এ ছাড়াও বেসরকারি বিমান এবং চেয়ারকোচ গুলোতেও এ ৩ দিন বিশেষ ছাড় দেয়ার প্রস্তাব করা হয়। এছাড়া কক্সবাজার জেলার সমস্ত উপজেলার নান্দনিক পর্যটন স্পটগুলোকে পর্যটকদের আকর্ষন বাড়াতেও বিশেষ নির্দেশনা দেয়া হয়।


Spread the love