গাইবান্ধায় ভাইয়ের হাতে ভাই খুন

53
Spread the love

mগাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলায় ছোট ভাই মো. নবাব আলীকে (৪৫) পিটিয়ে হত্যা করেছে বড় ভাই আবদুল মতিন। বিরোধপূর্ণ জমির ধান কাটতে বাধা দেয়ার জের ধরে সাদুল্যাপুর উপজেলার দামোদরপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ জামুডাঙ্গা গ্রামে বুধবার সকালে এ  ঘটনা ঘটে। নিহত নবাব আলী ওই গ্রামের মৃত কলম উদ্দিনের ছেলে। এদিকে ওই ঘটনার পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে আবদুল মতিন (৬৫), তার স্ত্রী বেবী বেগম (৫০), মেয়ে মোজমা বেগম (৩২), মাজেদা বেগম (৩৮), নাজমা বেগম (২৫) ও মেয়ের জামাই সাদেকুলসহ (৩০) ৬ জনকে আটক করেছেন। আটকরা বর্তমানে সাদুল্যাপুর থানা হাজতে রয়েছেন। স্থানীয় লোকজন ও নিহতের পরিবার অভিযোগে জানা যায়, অনেকদিন ধরে নবাব আলীর সঙ্গে তার বড় ভাই আবদুল মতিন মিয়ার জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে আবদুল মতিন তার ভাড়াটে লোকজন নিয়ে বিরোধপূর্ণ জমির ধান কাটতে যান। খবর পেয়ে নবাব আলী তাদের বাধা দেন। এ সময় নবাব আলীর সঙ্গে বড় ভাই আবদুল মতিনের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে আবদুল মতিন উত্তেজিত হয়ে লাঠি দিয়ে নবাব আলীকে এলোপাতারি পেটান এবং ঘাড় ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দেন। এতে নবাব আলী অজ্ঞান হয়ে পড়লে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে সাদুল্যাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। সাদুল্যাপুর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মামুনুর রশিদ রুবেল জানান, খবর পেয়ে হাসপাতাল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহত নবাব আলীর দুই হাতের আঙ্গুল ও হাঁটুর নিচে গুরুতর জখমের চিহ্ন রয়েছে। সাদুল্যাপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফরহাদ ইমরুল কায়েস বিষয়টি নিশ্চিত করে গণমাধ্যমকে জানান, এ ঘটনায় নবাব আলীর বড় ভাই আবদুল মতিনসহ ৬ জনকে আটক করা হয়েছে। নিহত নবাব আলীর পরিবারের পক্ষ থেকে সাদুল্যাপুর থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।


Spread the love