গাইবান্ধায় স্কুলছাত্রকে পিটিয়ে হাত ভেঙে দিয়েছে পুলিশ

109
Spread the love

image_2068_261394গাইবান্ধা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর থানায় স্কুলছাত্রকে পিটিয়ে পুলিশ হাত ভেঙে দিয়েছে। পুলিশ নিজে বাঁচতে স্কুলছাত্রকে পেটানোর দায় চাপাচ্ছে থানার টি বয়ের উপর। জানা যায়, গত ১৭ আগস্ট বিকালে সাদুল্যাপুর থানায় যায় উপজেলার চাঁদ করিম মজিবর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র মুসা মিয়া (১৪)। মুসা মিয়া জানায়, ৬ বন্ধু এক সাথে থানার পার্ক দেখতে গেলে পিছন দিক থেকে পুলিশ তাদেরকে পেটানো শুরু করে। পুলিশের পিটুনি ঠেকাতে গিয়ে লাঠির আঘাতে তার বাম হাতে মারান্তক জখম হয়। পরে সহপাঠিরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।
সেই দিন সাদুল্যাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরি বিভাগে দায়িত্ব পালনরত চিকিৎসক ওয়ালি উল্লাহ জানান, মুসা মিয়াকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বাম হাতে জখম হওয়ায় হাতটি গলার সাথে বেঁধে ঝুলে রাখার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। মুসা মিয়ার পিতা রশিদুল ইসলাম জানান, সাদুল্যাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে মুসা মিয়াকে ছেড়ে দেয়ার পর তাকে নেয়া হয় রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। সেখানে এক্স-রে করে চিকিৎসকরা জানান, মুসা মিয়ার হাত ভেঙে গেছে। পরে বাড়িতে এসে কবিরাজের মাধ্যমে মুসা মিয়ার হাতে ব্যান্ডেজ পরানো হয়েছে। আর্থিক সমস্যার কারণে মুসা মিয়াকে উন্নত চিকিৎসা দেয়া যাচ্ছে না। সাদুল্যাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ ফরহাদ ইমরুল কায়েস জানান, কোন পুলিশ সদস্য ওই ছাত্রকে পেটায়নি। থানার টি বয় মিলন মিয়ার লাঠির আঘাতে ওই ছাত্র আহত হয়েছে।
চাঁদ করিম মজিবর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শেখ ফরিদ জানান, গ্রীস্মকালীন আন্তঃস্কুল ফুটবল টুর্ণামেন্টে অংশ নিতে তার বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সাদুল্যাপুর হাইস্কুল মাঠে যায়। সেখান থেকে কয়েকজন শিক্ষার্থী থানার পার্ক দেখতে গেলে পুলিশ তাদের পেটায়। এতে অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র মুসা মিয়া আহত হয়।


Spread the love