গোলাপগঞ্জে যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু: তদন্তে নেমেছে পুলিশ

80
Spread the love

গোলাপগঞ্জ (সিলেট) প্রতিনিধি : সিলেটের গোলাপগঞ্জের ভাদেশ্বর ইউনিয়নে মজিবুর রহমান (২২) নামক এক যুবকের  রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।শুক্রবার রাত ৮ টার দিকে উপজেলার লক্ষণাবন্দ ইউপির ক্লাবের পাশে তার লাশ পাওয়া যায়।নিহত মুজিবুর রহমান গোলাপগঞ্জ  উপজেলার ভাদেশ্বর ইউপির কলাশহর গ্রামের আব্দুল মজিদের ছেলে। স্থানীয় সুত্রে জানা যায়,শুক্রবার রাত ৮ টার দিকে উপজেলার লক্ষণাবন্দ ইউপির ক্লাবের পাশে কয়েকজন ব্যক্তি মুজিবুরের লাশ পতিত আবস্থায় দেখতে পেলে আশেপাশে লোকজনকে জড়ো করে তার আত্নীয় স্বজনকে খবর দেন।বেচে আছে কিনা সন্দেহ করে মুজিবুরকে তার আত্নীয় স্বজন স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করে।শনিবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে মুজিবুরকে দাফনের জন্য গোসল করতে নিলে তার গলা ও শরিরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন দেখতে পান।পরে গোলাপগঞ্জ মডেল থানা পুলিশকে খবর দেয়া হয়।পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য প্রেরণ করেছে। মুজিবুরের ছোটভাই মুহিবুর রহমান জানান, দুইদিন আগে উপজেলার লক্ষ্মীপাশার লিয়াকত আলীর (দূরসম্পর্কে মামা) বাড়িতে যান তার ভাই মুজিবুর। শুক্রবার রাত ৮টার দিকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তিনি সমস্যায় আছেন উল্লেখ করে কিছু টাকার প্রয়োজন বলে জানান মুহিবুরকে। এর পর থেকে মোবাইল বন্ধ থাকায় মুজিবুরের সাথে আর যোগাযোগ করা যায়নি। এ ব্যাপারে সুরতহাল রিপোর্ট করা এসআই আতিক আহমদ জানান, লাশের গলাসহ বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। মুজিবুরের মৃত্যুর বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য লিয়াকত আলী ও তার ছেলে রুহেল আহমদকে থানায় নেওয়া হয়েছে। নিহত মুজিবুরের বড় বোনের জামাই নজিব উদ্দিন বলেন, মুজিবুর দু’দিন ধরে লিয়াকতের বাড়িতে ছিলো। ওই বাড়িতেই নির্যাতন করে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেন নজিব।


Spread the love