ঘোড়াঘাটে হুন্ডির টাকাসহ মাইক্রোবাস আটক : চালক সহ ২ জন আটক

56
Spread the love

bd l1ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) থেকে মহাতাব মুহাম্মাদ সরকার : দিনাজপুরের মাইক্রোবাস থেকে  হুন্ডির ৭৭ লাখ টাকা উদ্ধার সহ চালক সহ ২ জনকে আটক করে করেছে ঘোড়াঘাট থানা পুলিশ । ঘোড়াঘাট থানার অফিসার ইনচার্য নুরুজ্জামান চৌধুরী ওসি ইন্সপেক্টর তদন্ত ইমতিয়াজ কবির সহ পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিয়ে রবিবার সকাল সাড়ে নয়টায় খেতাব মোড় পুলিশ চেক পোস্টে ঢাকা মেট্রো চ- ১৫-১৮৩৬ নং আটক করে। এ সময় পুলিশ মাইক্রো চালক শাহিন আলম (২৮) ও সবুজ ইসলামকে (২৯) আটক করে। আটক শাহীন আলম হাকীমপুর উপজেলার মধ্য বাসুদেবপুর গ্রামের আব্দুল জলিলের পুত্র ও সবুজ চেচুড়িয়া গ্রামের মাহবুবুল ইসলামের পুত্র। তাদের থানায় নিয়ে ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ রোখসানা বেগমের উপস্থিতিতে প্রাথমিক জিজ্ঞাসা বাদে প্রথমে তারা ১৩ লাখ টাকার কথা স্বীকার করে। এতে সন্দেহ হলে আটককৃদের স্বীকার ্অনুযায়ী আটক মাইক্রোবাসটি তল্লাশী করে অভিনব কায়দায় রাখা ৪৪ লাখ টাকা উদ্ধার করে। টাকার মালিক ও মাইক্রোবাসটির মালিক হিলি স্থল বন্দরের সিএনএফ ব্যবসায়ী আল হাজ্ব রেজাউল করিম। গ্রেফতারকৃতরা জানায়,  তারা ওই টাকা বগুড়ার একটি আড়তে নিয়ে যাচ্ছিল। সেখানে আল হাজ্ব রেজাউল করিমের লোক রয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে আরও জানায়, এ টাকার কিছু বগুড়া ইসলামী ব্যাংকে জমা হবে এবং কিছু টাকায় একটি মাইক্রোবাস কেনা হবে। জিজ্ঞাসাবাদে তাদের কথাবার্তায় ব্যাপক গড়মিল দেখা যায়। টাকাগুলো জাল কি না তা পরীক্ষার জন্য ওসমানপুর সোনালী ব্যাংক থেকে মেশিন এনে পরীক্ষা করা হয়। উদ্ধার কৃত টাকা জাল নয় মর্মে উপস্থিত ব্যাংকের ম্যনেজার নিশ্চিত করেন। ঘটনার সংবাদ পেয়ে ফুলবাড়ী সার্কেলের এএসপি ফয়জুর রহমান থানায় উপস্থিত হয়ে মাইক্রোবাসটিতে আরও কিছু আছে কি না তা পরীক্ষা করে দেখেন। এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত টাকা গুলো হুন্ডির টাকা না মালিকানার টাকা তা নিশ্চিত হতে পারে নি উপজেলা নির্বাহী অফিসার রোখছানা বেগম, এএসপি ফয়জুর রহমান ও ওসি নুরুজ্জামান চৌধুরী। উদ্ধারকৃত টাকা গুলো হুন্ডির টাকা হলে ওই মামলা হবে বলে ওসি জানান। তবে মাইক্রোবাস মালিককে একাধিকবার ফোন করা হলেও এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত আসেনি।


Spread the love