চকরিয়ার বদরখালীতে দু’ গ্রুপের বন্দুক যুদ্ধে নিহত-১, আহত ৬

92
Spread the love

কক্সবাজার প্রতিনিধি : কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার বদরখালীতে জায়গা-জমির বিরোধকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট সংর্ঘষের ঘটনায় বিএনপি নেতা ইকবাল বদরী ও হোছাইন আহমদ গংদের গুলিতে মোজাফ্ফর গংদের বিদেশ প্রবাসী হেলাল উদ্দিন সিপু নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে অনন্ত ৬জন। মঙ্গলবার গভীর রাত ২টার দিকে উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নের কুতুবদিয়া পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পশ্চিম পাশের এলাকায় ঘন্টাব্যাপি এ বন্দুক যুদ্ধের ঘটনায় প্রায় একশ রাউন্ড গুলিবিনিময় হয়েছে বলে স্থানিয়রা জানিয়েছেন। এসময় একটি টংঘর ও বসতবাড়ী আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয় ইকবাল বদরী গংরা। নিহত হেলাল উদ্দিন সিপু ( ৩০) চকরিয়া উপজেলার বদরখালী ইউনিয়নের কুতুবদিয়া পাড়ার মৃত আবু তাহেরের ছেলে।  আহতরা হলেন একই এলাকার আবু তাহেরর স্ত্রী সখিনা বেগম (৬০), বদি আলমের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৪০), অলি আহমদের স্ত্রী রওশন আরা বেগম (৪৫), সরওয়ারের স্ত্রী রুমা আকতার (২৫), নাছির উদ্দিন ছেলে সুজন (২৭), আব্দু শুক্ররের ছেলে রুবেল (২৪)।  এরা সকলেই চকরিয়া সরকারী হাসপাতালসহ চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
বদরখালী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন কিশোর বলেন, বিএনপি নেতা একে এম ইকবাল বদরীর, হোছাইন আহমদের নেতৃত্বে অর্ধ শতাধিক অবৈধ অস্ত্রধারী সন্ত্রীরা মরহুম মোজাফ্ফর আহমদ গংদের আদালতে বিচারীধীন বৈধ জমির টংঘরের হামলা চালালে এতে মোজাফ্ফার গংরা বাধাঁ দিলে সন্ত্রাসীরা এলোপাতাড়ি শতাধিক রাউন্ড গুলি বর্ষন করে এলাকায় জনমনে আতংক সৃৃষ্টি করে। এক পর্যায়ে বদরী, হোছাইন আহমদ গংদের দায়ের কোপে ও গুলিতে একজন নিহত, নারী পুরুষসহ ৬জন আহত হয়।
নিহত হেলাল উদ্দিন সিপুর মা ছখিনা বেগম জানান, সন্ত্রাসীরা মঙ্গলবার রাত ১ টার দিকে আমাদের টংঘর এবং বসতবিটা হামলা চালানোর সময় বদরখালী নৌ-পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনা স্থলে আসলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে। পরে পুলিশ যাওয়ার সাথে সাথে সন্ত্রীরা অর্তকিত হামলা চালিয়ে দায়ের কোপে এবং গুলি করে আমার ছেলের মৃত্যু নিশ্চিত করে উল্লাস প্রকাশ করে চলে যায়। পুলিশের সাথে প্রতিপক্ষ ইকবাল বদরী গংদের সখ্যতা থাকার কারনে এ নির্মম হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে নিহতের পারিবারিক সূত্রে দাবী উঠেছে। সকাল ১১ টার সময় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত  পুলিশ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত কাউকে আটক করতে পারে নাই।
খবর পেয়ে বুধবার সকাল ৯টার দিকে কক্সবাজার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল-চকরিয়া) মোঃ মাসুদ আলম, স্থানিয় চেয়ারম্যান নুরে হোছাইন আরিফ ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছেন।


Spread the love