চাটমোহর পৌর নির্বাচনে সংসয় নিয়ে সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্রচারণা

76
Spread the love

CHATMOHAR-POROএম এস আলম বাবলু, চাটমোহর পাবনা : পাবনার চাটমোহর পৌরসভার নির্বাচন এবার হবে কি হবেনা তা-নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকলেও সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্রচারণা শুরু হয়েছে। তফসিল ঘোষণা না হলেও ২য় শ্রেণির এ পৌরসভার সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রচার প্রচারণা ও গণসংযোগ শুরু করে দিয়েছে। আদালতের আদেশের কারণে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে তপশীল ঘোষনার আগেই নির্বাচনের তালিকা থেকে চাটমোহর পৌরসভার নির্বাচন বাদ দেওয়ায় গুজব উঠেছে।
জানা গেছে, বিলচলন ইউনিয়নের একটি অংশ চাটমোহর পৌরর মৌজায় হওয়ার কারণে অনেক দিন ধরেই চাটমোহর পৌরসভার প্রতিনিধি ও বিলচলনের প্রতিনিধি সেটিকে পুঁজি করে নিজেদের ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে বারবার অপচেষ্টা চালিয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় বিগত সময়ে পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র ও বিলচলন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আদালতে গেছেন। পরবর্তীতে তদবির না করায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এবার সেই মামলার তদবিরকারক দু’তিন জন প্রভাবশালী মামলার আদেশের নথিপত্র নাকি জমা দিয়েছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে। ফলে আগামী নির্বাচনী তফশিল থেকে বাদ পড়তে পারে চাটমোহর পৌরসভার নাম। জনগণের ম্যান্ডেটে নয়, মামলা-মোকদ্দমার মাধ্যমে ক্ষমতায় থাকতে চাইছেন এসকল জন প্রতিনিধি। একাধিক সূত্র মতে, আগামী নির্বাচনে এ সকল জনপ্রতিনিধির ছিঁকে ছিড়বে না, ফলে আগেই সকল ব্যবস্থা করা হচ্ছে। চাটমোহর পৌরসভার এবারের নির্বাচন না হওয়া এতসব সংসয় নিয়েও সম্ভাব্য প্রার্থীরা বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণের মাধ্যমে ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণের পাশাপাশি দলীয় মনোনয়ন লাভের জন্য জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন। প্রার্থীদের তৎপরতায় ভোটারদের মাঝেও সৃষ্টি হচ্ছে উৎসবের আমেজ। মেয়র প্রার্থীরা কোন পোস্টার বা ব্যানার না লাগালেও কাউন্সিলর প্রার্থীরা পোস্টার ও ডিজিটাল ব্যানার লাগিয়েছে। চা-স্টোলগুলোতে শুরু হয়েছে নির্বাচনীয় ঝড়। এবারের নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন- বর্তমান মেয়র উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক মির্জা রেজাউল করিম দুলাল, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন সাখো, বিএমএ পাবনা জেলা সভাপতি ডাঃ গোলজার হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল হোসেন ধনী। বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে নাম শোনা যাচ্ছে, সাবেক মেয়র ও উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর আব্দুল মান্নান, উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ আব্দুর রহিম কালু, চাটমোহর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক এমপি আলহাজ্ব কেএম আনোয়ারুল ইসলামের বড় ছেলে, পৌর বিএনপির সহ-সাধারণ সম্পাদক কেএম মনোয়ারুল ইসলাস সাফি। চাটমোহর পৌরসভার নির্বাচন হচ্ছে না-এমন প্রচারণা চললেও সম্ভাব্য প্রার্থীরা গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। হিমেল ঠান্ডার মাঝে দিন-রাত প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছে তারা। বিলচলন ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদও এব্যাপারে কিছু জানেন না বলে জানান। কাউন্সিলর মোঃ খয়বর হোসেন জানান, নির্বাচন হচ্ছে না, সে ব্যাপারটা তাঁর জানা নেই। সে এবারও কাউন্সিলর প্রার্থী হিসাবে প্রচারণা চালাচ্ছে। চাটমোহর পৌরসভার বর্তমান মেয়র মির্জা রেজাউল করিম দুলাল বলেন, শিমানা জটিলতা বা আদালতের আদেশের কারণে নির্বাচন হবে না এমন কোন খবর আমার জানা নেই। কোন মামলা মোকদ্দমার বিষয়টিও আমি জানি না।


Spread the love