‘জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব’র কেন্দ্রীয় কমিটি পূনর্গঠন প্রযুক্তিবিদ ড. রাবিদ আহ্বায়ক : স্বপন সদস্য সচিব

147
Spread the love

jopc-1(1)প্রেস বিজ্ঞপ্তি : ১৫ : ০৯ : ২০১৫ : প্রযুক্তিবিদ ড. জানে আলম রাবিদকে আহ্বায়ক এবং বনপা’র কেন্দ্রীয়  সভাপতি শামসুল আলম স্বপকে পুনরায় সদস্য সচিব মনোনীত করে “জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব” এর কেন্দ্রীয় কমিটি পূনর্গঠন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে ১৫ সেপ্টেম্বর বিকেলে জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব এর  আহ্বায়ক কমিটির এক জরুরী সভা “জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব” এর জাতীয় কমিটির ১ নং সদস্য মো. বেলায়েত হোসেন বেলালের  সভাপতিত্বে ঢাকার শ্যামলীস্থ সব বিনোদন২৪ডটকম অনলাইন নিউজ পোর্টাল কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন  সদস্য সচিব শামসুল আলম স্বপন।
“জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব”-এর জাতীয় কমিটির সদস্যরা আলোচনায় অংশ নিয়ে বলেন, ২০১৪ সালের ৬ জুলাই আমরা “জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব” গঠনের উদ্যোগ গ্রহন করি। প্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বারের আরামবাগের আনন্দ কম্পিউটার কার্যালয়ে প্রথম সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেই সভায় শামসুল আলম স্বপনের প্রস্তাবে মোস্তাফা জব্বারকে আহ্বায়ক এবং ইঞ্জি. রোকমুনুর জামান রনির প্রস্তাবে বনপা’র সভাপতি শামসুল আলম স্বপনকে সদস্য সচিব করে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট “জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব” এর জাতীয় কমিটি গঠন করা হয়।
১৬ জুলাই-২০১৪ জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের দ্বিতীয় সভা অনুষ্ঠিত হয় । এ সভায় জাতীয় কমিটির সদস্য সংখ্যা বাড়িয়ে ২৫ সদস্য করার প্রস্তাব গৃহিত হয়।  এ ছাড়া দেশের প্রতিটি জেলায় “জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব” এর শাখা সংগঠন গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। এ ব্যাপারে জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের সদস্য সচিব শামসুল আলম স্বপনকে দায়িত্ব দেয়া হয় । দায়িত্ব প্রাপ্তির পর সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে  কক্সবাজার, সিলেট, রাঙামাটি,বান্দরবান, মৌলভী বাজার, খুলনা,যশোর,পাবনা, ভোলা, ফরিদপুরসহ বেশ কয়েকটি জেলায় অনলাইন প্রেসক্লাব গঠন করা হয়।
বক্তারা বলেন আমরা যে আশা নিয়ে জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবে প্রখ্যাত প্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বারকে আহ্বায়ক মনোনীত করেছিলাম সে আশা পুরণ হয়নি বরং আশাহত হয়েছি।
আহ্বায়কের কাছে আমাদের প্রত্যাশা ছিল তিনি তাঁর মননশীলতা এবং প্রভাব-পতিপত্তি দিয়ে “জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব” কে বাস্তব রূপদান করবেন। কিন্তু ১ বছর ২মাস অতিবাহিত হলেও তিনি এই সংগঠনকে গতিশীল করা কিংবা বাস্তব রূপদানের জন্য কোন পদক্ষেপ নেন নি। তিনি ১ বছরের মধ্যে কেন্দ্রীয় কমিটির একটি সভাও করেন নি। সংগঠন পরিচালনার ক্ষেত্রে দিক নির্দেশনা প্রদান কিংবা সংগঠনের ব্যাপারে কোন দায়িত্ব পালন করেন নি। সাংবাদিকদের বিভিন্ন সমস্যায়  ভুমিকা নেয়া দুরে থাক তিনি সব সময় পাশ কাটিয়ে গেছেন। প্রখ্যাত সাংবাদিক প্রবীর সিকদারের মুক্তি আন্দোলনে “জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের ভুমিকা থাকা প্রয়োজন ছিল। কেননা  প্রবীর সিকদার  একজন অনলাইন পত্রিকার সম্পাদক এবং  প্রথিতযশা সাংবাদিক।
যে বিষয়টি সব চেয়ে বেশী প্রশ্নবিদ্ধ করে সেটা হলো জনাব মোস্তাফা জব্বারের নিজস্ব কোন নিউজ পোর্টাল নেই। তিনি প্রখ্যাত প্রযুক্তিবিদ । ইচ্ছে করলে তিনি এক সপ্তাহের মধ্যে একটি ভালো পোর্টাল নির্মাণ করতে পারেন। অনলাইন প্রেসক্লাবে গত ১ বছর ২ মাস কাল দায়িত্বে থাকলেও তিনি নিজ নামে কোন পোর্টাল তৈরী করেন নি। পাশা পাশি  জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের সদস্য সচিবসহ কমিটির সকল সদস্যের মতামত উপেক্ষা করে ‘চট্ট্রগাম অনলাইন প্রেসক্লাব’ নামে একটি অবৈধ পকেট কমিটিকে অনুমোদন দিয়ে তিনি বির্তকিত হয়ে পড়েন।  প্রযুক্তিবিদ মোস্তাফা জব্বার  এখন পেশাগত সাংবাদিকও নন। সেহেতু তাঁর  ‘জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবে আহ্বায়ক থাকার কোন নৈতিক অধিকার নেই বলে উপস্থিত সদস্যরা মতামত দেন । সভায় ২০১৪ সালের ৬ জুলাই গঠিত “জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব” এর আহ্বায়ক কমিটি সর্বসম্মতিক্রমে বিলুপ্ত ঘোষণা করে ২৫ সদস্য বিশিষ্ট নতুন আহ্বায়ক কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয় ।
সভায় উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন,মো.বেলায়েত হোসেন বেলাল, জোহরা পারভীন জয়া, মো.আনোয়ার হোসেন, প্রদীপ বড়–য়া জয়, এ্যাড. মুজাহিদুল ইসলাম ওয়ালী উল্লাহ খান, আব্দুস সালাম, ইঞ্জি.রোকমুনুর জামান রনি। অনলাইনে মতামত দেন  লন্ডন থেকে সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি কবি মুহিদ চৌধুরী, কক্সবাজার থেকে কক্সবাজার অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি অধ্যাপক আকতার চৌধুরী, রাঙামাটি অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি  নির্মল বড়–য়া মিলন, উত্তরা থেকে তারেকউজ্জামান খান, কাওরান বাজার থেকে মিজানুর রহমান হেলাল, খুলনা অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি কামরুজ্জামান, বান্দরবান অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি বিপ্লব চাকমা, মৌলভী বাজার অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি মুসাইদ হোসেন, পাবনা অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি সরকার রুহুল আমীন, সেক্রেটারী অধ্যাপক জাকির সেলিম, ভোলা অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি খলিল উদ্দিন ফরিদ, যশোর অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি এস এ খান  কচি প্রমুখ।
জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব গতিশীল ও বাস্তবরূপ দানের জন্য সর্বসম্মতিক্রমে নি¤েœ উল্লেখিত ব্যক্তিদের সমন্বয়ে কেন্দ্রীয় কমিটি  পূর্ণগঠন করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়।
‘জাতীয়  অনলাইন প্রেসক্লাব’-এর পূর্ণগঠিত কেন্দ্রীয় কমিটি-২০১৫
আহ্বায়ক : ড. জানে আলম রাবিদ।
যুগ্ম-আহ্বায়ক:  অধ্যাপক আকতার চৌধুরী, মুহিদ চৌধুরী, নির্মল বড়–য়া মিলন, তারেকউজ্জামান খান, মো.বেলায়েত হোসেন বেলাল, আমিরুল ইসলাম আসাদ, মিজানুর রহমান হেলাল।
সদস্য সচিব : শামসুল আলম স্বপন, যুগ্ম-সদস্য সচিব: ইঞ্জি, রোকমুনুর জামান রনি।
সদস্য  : জোহরা পারভীন জয়া, সোহেল রেজা, রাজু আহমেদ দিপু, প্রকৌশলী রায়হানুল ইসলাম, এ্যাড. মুজাহিদুল ইসলাম, ওবায়েদ উল্লাহ ভুলন, প্রদীপ বড়ৃয়া জয়, ফরিদ উদ্দিন খলিল, সরকার রুহুল আমীন, মো. আনোয়ার হোসেন, মুসাইদ হোসেন, কামরুজ্জামান, প্রদীপ ঘোষাল তপু, ওয়ালী উল্লাহ খান, বিপ্লব চাকমা।
সভায় আরো সিদ্ধান্ত হয় পূর্ণগঠিত কমিটি আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে বাকি সব জেলায় জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের কমিটি গঠন করে আগামী জানুয়ারী মাসে “জাতীয় কনভেনশন”এর ব্যবস্থা করবে। সেই সাথে এই কমিটি প্রতি মাসে কমপক্ষে একবার বৈঠকে মিলিত হবে।  জাতীয় কনভেনশনে “জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাব”-এর পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠন করা হবে। সভায় ‘চট্ট্রগাম অনলাইন প্রেসক্লাব’ নামে অবৈধ পকেট কমিটিকে বাতিল ঘোষণা করা হয় এবং  ঈদের পর চট্রগ্রাম অনলাইন প্রেসক্লাব গঠন করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়।
সভায় আগামীতে বনপা ও জাতীয় অনলাইন প্রেসক্লাবের সদস্যদের ঢাকাতে স্বল্পমূল্যে থাকা-খাওয়ার জন্য “বনপা রেষ্ট হাউজ ”এর বাড়ি ভাড়া নেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়। অনলাইন নিউজ পোর্টাল মালিক /সম্পাদক /সাংবাদিকদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করার সিদ্ধান্ত হয়। সেই সাথে একটি ষ্টিয়ারিং কমিটি, অর্থ উপকমিটি, সাংগঠনিক নেট ওয়ার্ক উপকমিটি, প্রযুক্তি উপকমিটি, আইন ও প্রশাসন উপকমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয় । উপকমিটি গুলো আগামী ৭ দিনের মধ্যে প্রকাশ করা হবে সভার সভাপতি ঘোষণা দেন ।


Spread the love