ঝালকাঠিতে ৩ দিনে মাদক সহ ১৩ জন আটক

75
Spread the love

unnamed6ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠি পুলিশের মাদক দ্রব্য উদ্ধারে ব্যাপক কর্মকান্ডে সকল মহল সাধুবাদ জানিয়েছে। গত ৩দিনে বিয়ার, ফেন্সিডিল, ইয়াবা, গাঁজাসহ ১৩ জনকে আটক করেছে ডিবি ও থানা পুলিশ। পুলিশ সুপার সুভাষ সাহা যোগদানের পর থেকে তার কঠোর অবস্থানের কারনে মাদক ব্যবসায়ী সহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িতরা থমকে গেছে। পুলিশ সুপারের নির্দেশে নবাগত সহকারী পুলিশ সুপার সার্কেল এম এম মাহমুদ হাসান সহ থানা ও ডিবি পুলিশ নিয়মিত ব্যবসায়ী আটক, মাদক দ্রব্য নির্মুল সহ সবধরনের অপরাধের নিয়ন্ত্রনে একের পর এক সফল অভিযান চালিয়ে যাচ্ছেন। যে কারনে রাজনৈতিক প্রভাবশালী ও নেপথ্য গডফাদার সহ ‘হোয়াই কালার ক্রিমিনাল’ খ্যাত বর্নচোরা অপরাধীরা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে আটক হচ্ছে আইনের খাঁচায়। শনিবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিনিয়ার সহকারী পুলিশ সুপার এমএম মাহমুদের নেতৃত্বে ডিবি এসআই পলাশ বিশ্বরোড কলেজ মোড় থেকে বরিশাল আমনতগঞ্জ এলাকার বাসিন্ধা শাওন মাহমুদ (৪০) কে আটক করে। এসময় তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক তল্লাশী চালিয়ে ৩ বোতল ফেন্সিডিল ও তার কাছে বিক্রেতা আউয়াল বাকলাইয়ের পুত্র মোহসিন বাকলাইয়ের আস্তানা থেকে ফেন্সিডিলের ৮টি খালি বোতল উদ্ধার করা হয়। তবে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দীর্গ দিন ধরে নেপথ্যে থেকে ফেন্সিডিল-ইয়াবার পাইকারি ব্যবসা করে আসা মোহসিন বাকলাই গ্রেপ্তার এড়াতে সক্ষম হলেও এদুজনকে আসামী করে থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে এজাহার দায়ের করা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্র জানায়। একই দিন বিকালে সিনিয়ার সহকারী পুলিশ সুপার সহ ডিবি এসআই তাহাজ্জুদ অভিযান চালিয়ে শিল্পকলা একাডেমীর সামনে থেকে ১২ বোতল ফেন্সিডিলসহ কবিরাজ বাড়ি এলাকার বাসিন্ধা অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসারের পুত্র কাজি ইলিয়াছ (৩৫)কে গ্রেপ্তার করা হয়। পিতা অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসার হওয়ার সুবাধে কাজি ইলিয়াছ দীর্গ দিন ধরে নেপথ্যে থেকে ফেন্সিডিল-ইয়াবার পাইকারি ব্যবসা চালিয়ে আসলেও এতাদিন ধরাছোয়ার বাইরে থাকতে সক্ষম হয়। পরে ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক তাহাজ্জুদ বাদী হয়ে মাদক নিয়ন্ত্রন আইনে সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। এরআগে শুক্রবার রাতে সদর হাসপাতালের মা ও শিশূ কেন্দ্রের সামনে থেকে ৫পিচ ইয়াবা ও ১ বোতল বিদেশী বিয়ারসহ ৪জনকে আটক করে ডিবি পুলিশ। আটককৃত ভীমরুলী গ্রামের বিশ্বজিৎ বড়াল, পুর্ব চাদকাঠির মাহবুবুর রহমান, বেতাগীর সঞ্চয় শীল ও শহরের সুজিৎ মালাকারের নামে ঝালকাঠি সদর থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে ডিবি উপ-পরিদর্শক তাহাজ্জুদ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। রাত সাড়ে ৯টার সময় ডিবি পুলিশ ঝালকাঠি রকেটঘাট থেকে সম্ভু সুমন নামক মাদক ব্যাবসাীকে গাজা ও ইয়াবা সেবনের সারঞ্জামাদি সহ গ্রেপ্তার করেন। পরে সুমনকে নির্বাহী ম্যাজিট্ট্রেট রাসেদুল ইসলাম ভ্রম্যামান আদালতে ২ হাজার টাকা জরিমানা করেন। একই রাত ডিবি পুলিশ সদর হাসপাতালের সম্মুখ থেকে ইলিয়াছ, আরিফুল ইসলাম ও নলছিটির কুলকঠি গ্রামের আরিফুল ইসলামকে শহরের কাঠপট্টি থেকে তাদের আটক করে। পরে তাদের প্রত্যেকে ২ হাজার টাকা জরিমানা করে ভ্রাম্যমান আদালত। অন্যদিকে ঝালকাঠি সদর থানার উপ-পরিদর্শক আ. হালিম তালুকদার ও উপ-সহকারী পরিদর্শক মাইনুল ইসলাম রাতে শহরতলীর বিকনা থেকে ৫ গ্রাম গাজাসহ সুমন জোমাদ্দার নামে এক যুবককে আটক করে। ভ্রাম্যমান আদালত গ্রেপ্তারকৃত সুমনকে ৬ মাসের কারাদন্ড দেন। একই রাত সাড়ে ৮টায় পুলিশ পৌরমিনিপার্ক থেকে শাকিল নামে এক যুবককে ইভটিজিংয়ের অভিযোগে আটক করে । পরে তাকে ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করা হলে সদর ভূমি কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট আতাহার আলী মিয়া ৬ মাসের কারাদন্ড প্রদান করে। বৃস্পতিবার রাতে ডিবি পুলিশ উদ্ধোধন স্কুলের মাঠ থেকে বাউফল উপজেলার সাগর চন্দ্র দাস (১৫) ও নলছিটি উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের রকিবুল ইসলামকে ১ পুড়িয়া গাজাসহ আটক করেছে । তাদেরকে ভ্রাম্যমান আদালত ২ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এসব অভিযানের নেতৃত্বদানকালে সিনিয়ার সহকারী পুলিশ সুপার এম এম মাহমুদ হাসান বলেন, ঝালকাঠিকে মাদকমুক্ত করতে হলে সবার সহযোগীতা দরকার। মাদক নিয়ন্ত্রন ও সন্ত্রাসী দমনে কাউকে ছাড় দেয়া হবেনা। এ ব্যাপারে পুলিশ সুপার সুভাস চন্দ্র সাহা জানান, ঝালকাঠির আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ও অপরাধ দমনে পুলিশের সকল পর্যায়ের কর্মকর্তাকে তৎপর রাখা হয়েছে। যে কারনে পুলিশ শান্তিপূর্ন ভাবে ঝালকাঠিতে পূজা সম্পন্ন সহ সাধারন মানুষের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছে।


Spread the love