ঝালকাঠি সোহেল হত্যা মামলা তুলে নিতে পরিবারকে হুমকি

76
Spread the love

bdcঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠির রাজাপুরের বড়ইয়া ডিগ্রি কলেজের ছাত্র সোহেল রানা হত্যার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলা তুলে নিতে সোহেল রানার পরিবারের সদস্যদের হুমকি দিচ্ছে আসামীরা। গতকাল বৃহস্পতিবার সোহেল রানার পরিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেছেন। এমনকি মামলা তুলে না নিলে সোহেল রানার মত তার পরিবারের সকল সদস্যকে একইভাবে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দেয়া হচ্ছে। সকালে জেলা শহরের একটি বাসায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন নিহত সোহেল রানার ভাই মো. হেলাল হোসেন। তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, উপজেলার বড়ইয়া ডিগ্রী কলেজের ছাত্র সোহেল রানাকে গত ২৬ আগষ্ট দুপুরে কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে স্থানীয় চিহ্নিত সন্ত্রাসী শুভ ও তার বাবা আব্দুল্লাহ আল মাহাবুবসহ কয়েকজন সন্ত্রাসীরা সোহলে রানাকে নির্মনভাবে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করে। ওই দিন রাতে নিহত কলেজ ছাত্র সোহেল রানার বাবা মো. আমজেদ ফকির বাদি হয়ে রাজাপুর থানা হত্যা এ ঘটনায় ৭ জনের নাম উল্লেখপূর্বক ১২ জনের নামে হত্যার ধারায় মামলা দায়ের করেন। পুলিশ শুভর মা নারগিস আক্তার নাসিমাকে গ্রেফতার করলেও অন্য কোন আসামীদের গ্রেফতার করেনি পুলিশ। কিছু দিন পূর্বে নাসিমা জামিন যায়। বর্তমানে নাসিমাসহ মামলার আসামীরা বিভিন্নভাবে মামলা তুলে নেয়ার জন্য সোহেল রানার পরিবারকে হুমকি দিচ্ছে, অন্যথায় সোহেল রানার পরিবারের সকলকেও হত্যা করা হবে বলে হুমকি দিচ্ছে। সংবাদ সম্মেলনে কলেজ ছাত্র সোহেল রানা বাবা আমজেদ ফকির ও মা রাজিয়া বেগম উপস্থিত ছিলেন। রাজাপুর থানার পুলিশ পরির্দশক (ওসি) শেখ মুনীর উল গিয়াস জানান, বিষয়টির তদন্ত চলছে এবং আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। উল্লেখ্য, জমিজমা সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জের ধরে হুমকি ও চাঁদা দাবির ঘটনায় প্রতিপক্ষ বড়ইয়া গ্রামের আব্দুল্লাহ আল মাহবুরের নামে থানায় জিডি (নং-৫৫৫, ১৬/০৮/২০১৫), র‌্যাবের কাছে অভিযোগ দায়ের এবং ঝালকাঠি আদালতে ৩ লাখ টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগে আব্দুল্লাহ আল মাহবুব, লিটন হাওলাদার ও মিল্টন হাওলাদারের নামে এ কলেজ ছাত্রের পিতা আমজেদ আলী ফকির মামলা (নং-এমপি ১১৭/১৫ “রাজা”, তারিখ ২৩/০৮/২০১৫) করার পর স্থানীয় ওই প্রতিপক্ষরা তাকে ও তার ছেলেসহ পরিবারের সকলকে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিল। ওই প্রতিপক্ষরাই কলেজছাত্র সোহেল রানাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ তার পিতা আমজেদ ফকিরের।


Spread the love