ঠাকুরগাঁওয়ে বিজিবি : চোরাকারবারী সংঘর্ষে আটক ২

115
Spread the love

2800মু.আসরারুল হক জামালী ঠাকুরগাঁও : ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার সীমান্তবর্তী তারাঞ্জুবাড়ী এলাকায় চোরাকারবীর বাড়ীতে অভিযানের সময় বিজিবি ও চোরাকারবারীর সাথে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ১৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঠাকুরগাঁও জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার মন্ডুমালা বিওপি’র সদস্যরা উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশক্রমে গোয়েন্দা সংস্থার সংবাদের ভিত্তিতে গতকাল শুক্রবার রাত দেড় টায় তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী ও চোরাকারবারী কামরুলকে গ্রেফতারের জন্য ঘেরাও করে। অভিযান চলাকালীন সময়ে কামরুলের পিতা নঈবুল মেম্বারের নেতৃত্বে ৩০/৩৫জন চোরাকারবারী বিজিবি সদস্যদের সাথে ধাক্কাধাক্কির এক পর্যায়ে উপর্যপড়ি হামলা শুরু করে এবং বিজিবির সাথে থাকা মটর সাইকেলে নম্বর প্লেট খুলে নেয়। মোটরসাইকেলটির নম্বর (ঠাকুরগাঁও ল-১১-০৮০৩)। পরে ঠাকুরগাঁও ৩০ বিজিবি’র অধিনায়ক তুষার বিন ইউনুস ও বালিয়াডাঙ্গী থানার অফিসার ইন-চার্জ আমিনুল ইসলাম ঘটনাস্থল গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসেন। স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে জানা যায়, বিজিবি অভিযান চলা কালে চোরাকারবারীরা ডাকাত ডাকাত বলে চিৎকার করে হামলা চালায়। এ ঘটনায় বিজিবি দু’জন চোরাকারবারীকে আটক করেছে। আটকৃতরা হলেন, বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার গোয়ালাড়া গ্রামের গোপাল পালের পুত্র সুরেশ (৫০) ও তারাঞ্জুবাড়ী গ্রামের ইউসুফছ আলীর পুত্র আব্দুস সোবহান (২৫)। এ ঘটনায় মন্ডমালা বিওপি’র জিসি ও সুবেদার নুরুল আমিন বাদী হয়ে নঈবুল মেম্বারসহ ১৫ জনের বিরুদ্ধে আজ শনিবার বালিয়াডাঙ্গী থানায় একটি মামালা দায়ের করেছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই সৈয়দ আবু তালেব আসামীদের ঠাকুরগাঁও জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। বালিয়াডাঙ্গী থানার অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম জানান, বিজিবির সিও সাহেব জানানোর পর আমি আমার অফিসারদের নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসি। যাতে সাধারণ মানুষ হয়রানী না হয়। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।


Spread the love