ডিগ্রি পেয়েও নিজ সম্পত্তি দখল নিতে পাচ্ছেনা সংখ্যালঘু পরিবার

126
Spread the love

গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়া সদরের পীরগাছা মৌজার নিজ পৈত্রিক সম্পত্তি দখল নিতে ভোগান্তি পোহাচ্ছে সংখ্যালঘু পরিবার। মহামান্য আদালতের বিভিন্ন রায়ের আলোকে জানা গেছে উক্ত জমির মুল মালিক রামগোপাল সরকার মারা গেলে তার ৫ পুত্রের মধ্যে ২৪/০৫/১৯৭৯ সালে ৮০৯৩ নং দলিলমুলে উক্ত সম্পত্তি বন্টন করে নেন। বন্টননামা অনুযায়ী ৩৬৯নং দাগে গজেন্দ্র নাথ সরকার পান। বাদী বকুল চন্দ্র সরকারের বন্টন মামলায় রহেন্দ্র চন্দ্র সরকার,বকুল চন্দ্র সরকার,দ্বিজেন্দ্র নাথ সরকার জমিজমা বাটোয়ারী মামলায় একতরফা ডিগ্রী লাভ করে। মহামান্য বিজ্ঞ আদালতের নির্দেশে উক্ত জমি ২৬/০৫/১৪ইং তারিখে তাদের দখলে দেওয়ার নির্দেশ দেন। এবং পীরগাছা মৌজার জে এল নং-৫০, সি এস ৪৮ এম আর আর ৬৬ হাল, খতিয়ান নং ১৪ এর সাবেক ৩৬৯/হালে জমি বাটোয়ারী মামলায় মহামান্য আদালত সবকিছু বিশ্লেষন করে উক্ত জমির প্রকৃত অংশীদার রহেন্দ্র চন্দ্র সরকার, বকুল চন্দ্র সরকার,দ্বিজেন্দ্র নাথ সরকারকে দখলে দেওয়ার ওয়াডার দেন। গত ৬/১২/১৪ ইং তারিখে বগুড়া জজকোট এর এ্যাডভোকেট কমিশনার এ,টি,এম,এস ছামছুজ্জামান ও আইনজীবি সহকারী অমূল্য ভূষন দাস মাফযোগের মাধ্যমে ঢাকঢোল পিটিয়ে এলাকাবাসীর উপস্থিতিতে উক্ত জমিতে বাশঁগাড়ি লাল নিশানা লাগিয়ে মালিকানা রহেন্দ্র চন্দ্র সরকার গনগনকে বুঝিয়ে দেন। কিন্তু ভুলবশত উক্ত জমির অংশ পীরগাছা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নামে রেকর্ড হয়ে যায়। জমির মালিক উক্ত রেকর্ড ভঙ্গের জন্য ল্যান্ডসার্ভে ট্রাইবুনালে একটি মামলা করেন যার নং ৬৭৯/১৩। স্কুল কতৃপক্ষ মহামান্য আদালতে উক্ত জমির কোন কাজগপত্র দাখিল করতে পারেনী বিধায় মামলাটি ডিসমিস হয়ে যায়। এছাড়া কেন রেকর্ড ভঙ্গ হবেনা সে মর্মে বাদী হাই কোটে একটি রিটপিটিশন দায়ের করেন যার নং ১০৮৫৬/১৫। উক্ত পিটিশনের আলোকে মহামান্য হাইকোট ডিবিশন একটি কারন দর্শনোর নোটিশ করেন এবং ৮ সপ্তাহ মধ্যে জবাব চান। জমিটি রহেন্দ্র নাথ সরকার কমিশন কতৃক দখলে পেলে তারকাটা দিয়ে বাউন্ডরী এবং কিছু গাছ রোপন করেন। রহেন্দ্র নাথ জানান,আমরা নিরাপত্তাহিনতায় আছি, আমি ই্ট দিয়ে ঘর নির্মান করতে গেলে প্রতিপক্ষরা লোকজন দ্বারা আমার নির্মানকৃত ঘড়গুলো ভেঙ্গে ফেলে। তিনি সুষ্ঠ বিচার ও জমি ফেরত পাওয়ার আশায় প্রষাশন ও উর্ধতন কতৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন।


Spread the love