তাড়াশে ৩ গরু চোরকে গণধোলাইয়ের পর পুলিশে সোর্পদ

67
Spread the love

fhyআশরাফুল ইসলাম রনি,তাড়াশ সিরাজগঞ্জ : সিরাজগঞ্জের তাড়াশে ৩ গরু চোরকে গণধোলাইয়ের পর পুলিশে সোর্পদ করেছে গ্রামবাসি। গণধোলাইয়ের শিকার চোরেরা হলো উপজেলার নওগা ইউনিয়নের হামিদপুর গ্রামের নুরু কসাইয়ের ছেলে উজ্জল হোসেন (২৪) তার ভাই আলম হোসেন (৩০) ও একই এলাকার নবীপুর গ্রামের শাবান আলীর ছেলে আনোয়ার হোসেন (৩৫)। গণধোলাইয়ের শিকার চোরদের সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়ে। গ্রামবাসি ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, রবিবার গভীর রাতে আটককৃত চোরেরা উপজেলার সীমান্তঘেষা উল্লাপাড়া উপজেলার তেলিপাড়া গ্রামের নুরুল হকের বাড়ির গোয়াল ঘর থেকে একটি গাভী গরু চুরি করে পাশের হামিদপুর গ্রামে নিয়ে গিয়ে জবাই করে মাংস প্যাকেটজাত করতে থাকে। পরে ভোর রাতে গরুর মালিক তার গোয়ালে গরু দেখতে না পেয়ে লোকজনকে ডাকাডাকি করে। গ্রামবাসি পাশের হামিদপুর গ্রামে মাঠের মধ্যে জবাইকৃত অবস্থায় সংঘবদ্ধ ৭জন গরু চোরকে ঘেরাও করে। এ সময় গ্রামবাসি ৩জনকে গণধোলাই দিয়ে ধরে নিয়ে গিয়ে তেলিপাড়া গ্রামে গরুর মালিকের বাড়িতে আটক করে রাখে। তবে আরো ৫ চোর গ্রামবাসির উপস্থিতির টের পেয়ে পালিয়ে যায়। এরা হলো তাড়াশ উপজেলার নওগা ইউনিয়নের নবীপুর গ্রামের ইন্সুব আলীর ছেলে মেলা কসাই, ইউসুফ আলীর ছেলে সারোয়ার হোসেন, হামিদপুর গ্রামের নুরু কসাইয়ের ছেলে সুজন, সাকুয়া দিঘী গ্রামের কুদ্দুস আলীর ছেলে আব্দুল মোমিন ও তাড়াশ সদর ইউনিয়নের সোলাপাড়া গ্রামের শাহ-আলম। খবর পেয়ে উল্লাপাড়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে আসলে গ্রামবাসি পুলিশের নিকট সোর্পদ করেন। এ ব্যাপারে গরুর মালিক নুরুল হক বাদী হয়ে আটক ও পলাতকদের বিরুদ্ধে উল্লাপাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।


Spread the love