দাফনের ৭ বছর পর ফিরে এলো ছোট বুড়ি খাতুন!

139
Spread the love

Jhenaidah-Photo-14.9.15ঝিনাইদহ প্রতিনিধি : এটা কি করে সম্ভব। মরদেহ দাফন হয়ে গেছে ৭ বছর আগে। তবে দাফনের ৭ বছর পর কিভাবে ফিরে ছোট বুড়ি খাতুন! প্রশ্ন এখানেই? চাঞ্চল্যকর খবর! তবে মিথ্যা নয়, সত্য ঘটনা। আর এমন সংবাদে ছোট বুড়িকে দেখার জন্য বাড়িতে ভিড় করছে দূর দূরান্ত থেকে আগত নানা নারী-পুরুষের। তবে আসল ছোট বুড়ি নাকি নকল বুড়ি তা নিয়ে নানা প্রশ্ন পরিবারের লোকজনের মধ্যে। ঘটনাটি ঘটেছে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার ঘোড়শাল ইউনিয়নের সালকুপা গ্রামে।সরেজমিনে শালকোপাড়া গ্রামে গিয়ে জানা যায়, শালকোপা গ্রামের মৃত মোহাম্মদ মোল্লার মেয়ে ছোট বুড়ি (৬০) মানসিক রোগে আক্রান্ত হয়ে ১৯৯০ সালের দিকে বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হয়। দীর্ঘ ১৫ বছর তার কোন খোঁজ ছিল না। হঠাৎ ২০০৫ সালের দিকে পরিবারের লোকজন খবর পায় ছোট বুড়ি সদর উপজেলার ছয়াইল গ্রামে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এর পর পরিবারের লোকজন তাকে সেখান থেকে ধরে বাড়িতে আনে। এরপর পেরিয়ে যায় ৩ বছর। হঠাৎ একদিন ছোট বুড়ি মারা যায়। দাফন করা হয় বাড়ির পাশেই। এ পর সবাই নিশ্চিন্তে ছিল। ৭ বছর পর আবার গত ১০ সেপ্টেম্বর সকালে ছোট বুড়ি কে সদর উপজেলার নারিকেলবাড়িয়া এলাকার মহিষাডাঙ্গা গ্রামে দেখা গেছে এমন খবর পেয়ে তার সেজো ভাই সদর উদ্দিন মোল্লাসহ অন্যরা সেখানে যায়। এবং দেখে তার বোনের মতোই চেহারার একটি মহিলা। এর পর তারা তাকে প্রশ্ন করে তোমার বাড়ি, তোমার বাবার নাম, তোমার ভাইদের নাম কি। একে একে সে উত্তর দেয়। এর পর তাকে আবার নিজ বাড়িতে আনে সদর উদ্দিন। এ ঘটনা জানাজানির পর এলাকার নারীপুরুষ ছোট বুড়ি কে দেখার জন্য ভিড় করছে তার বাড়িতে। ঘোড়শাল ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড মেম্বর জাহিদুল ইসলাম দুদু জানান, ঘটনাটি জানার পর এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। তবে বর্তমানে যে ছোট বুড়িকে পাওয়া গেছে সেই আসল। আর যাকে আগে দাফন করা হয়েছিল সে ছিল নকল।


Spread the love