দিনাজপুর এর ব্র্যাকের মাইক্রোফিন্যান্স কার্যক্রম পরিদর্শন

76
Spread the love

medium_212দিনাজপুর প্রতিনিধি : ২০২০ সালের মধ্যে দরিদ্র জনগণের সার্বজনীন আর্থিক অন্তর্ভুক্তির (ফাইনান্সিয়াল ইনক্লুসন) লক্ষ্যে  এ বছরই প্রথম বৈশ্বিক কর্মসূচি হিসেবে (এফআই২০২০) সপ্তাহ উদ্যাপন হতে যাচ্ছে। ১ নভেম্বর থেকে ০৫ নভেম্বর পর্যন্ত সপ্তাহটি উদ্যাপন করা হচ্ছে। বাংলাদেশে এর একমাত্র আয়োজক বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক। ব্র্যাক-এর মাইক্রোফাইন্যান্স কর্মসূচি এই উপলক্ষে দেশের ৬৪ জেলায় নানা কর্মসূচির আয়োজন করছে। এরই অংশ হিসেবে ৩ নভেম্বর মঙ্গলবার দিনাজপুর এর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ আবু রায়হান মিঞা ব্র্যাক দিনাজপুর অঞ্চলের রানীগঞ্জ এলাকার মাইক্রোফাইন্যান্স কর্মসূচির বিভিন্ন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। এছাড়াও রানীগঞ্জ এলাকায় ঋণ বিতরণ পূর্ব ওরিয়েন্টেশন পরিদর্শন, ঋণ বিতরণ কার্যক্রম ও গ্রামসংগঠন পরিদর্শন এবং সদস্যদের সাথে মত বিনিময় করেন। এসময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ আবু রায়হান মিঞা’র সঙ্গে ছিলেন মাইক্রেফিন্যান্স কর্মসূচির উর্দ্ধতন আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (দাবি) মোঃ ওবাইদুর রহমান, আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (দাবি) মোঃ আনোয়ার উদ্দিন ও মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (প্রগতি) আমিনা খাতুন, আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক (এনসিডিপি) মোঃ মাজহারুল ইসলাম, আঞ্চলিক হিসাব ব্যবস্থাপক পল্লব কুমার সাহা, অপারেশন ম্যানেজার বিএলসি মোঃ রাহাত আলী ও জেলা ব্র্যাক প্রতিনিধি মোঃ মহসিন আলী এবং অত্র এলাকার অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।  কার্যক্রম পরিদর্শনকালে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ আবু রায়হান মিঞা বলেন, ব্র্যাকের নিয়মনীতি, কাজকর্মের স্বচ্ছতা এবং আন্তরীকতা খুবই ভাল, যে কারণে ব্র্যাকএর কার্যক্রম দেখার সুযোগ পেলে ব্যস্ততা থাকলেও দেখতে যাই।
উল্লেখ্য, সার্বজনীন আর্থিক অন্তর্ভুক্তির বিষয়টি জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে যথেষ্ট গুরুত্ব বহন করে। পরিবর্তিত বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে এখনও বিশ্বব্যাপী প্রায় ২০০ কোটি মানুষ কোন ধরনের আর্থিক সেবার আওতাভুক্ত নয়। বিশ্বব্যাংকের তথ্যানুযায়ী বাংলাদেশে প্রায় সাড়ে সাত কোটি প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ এই সেবার বাইরে রয়েছেন। ফলে নিরাপদ সঞ্চয় ও বিনিয়োগের ক্ষেত্র যেমন সংকুচিত হচ্ছে, তেমনি বিঘিœত হচ্ছে কোটি কোটি মানুষের ভবিষ্যৎ আর্থিক নিরাপত্তা। এই প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পরবর্তী কৌশলগত পন্থা নির্ধারণের জন্য নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হচ্ছে। তারা নিজ নিজ দেশের আর্থিক কর্মকা- জনসম্পৃক্ততার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে আর্থিক অন্তর্ভুক্তি কর্মসূচিকে আরও এগিয়ে নিতে নানামুখী উদ্যোগ গ্রহণ করবেন।


Spread the love