দেশের উন্নয়নে সরকারকে সহযোগীতা করার জন্য সকল নাগরিকদের এগিয়ে আসা উচিৎ

89
Spread the love

DDS 171uiতাজউদ্দিন আহমেদ (তাজুল) : আন্তর্জাতিক জ্ঞানে বা সমীক্ষায় দেখা যায়, যে দেশের নাগরিক যত পরিশ্রমী সে দেশ ততো উন্নত ও শক্তিশালী। বর্তমান গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুকন্যা ও বাংলাদেশের সফল রাজনৈতিক জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশকে বর্হিবিশ্বের কাছে একটি উন্নত দেশ হিসেবে পরিচিতি লাভ করার জন্য যেভাবে নিরলশ পরিশ্রমের মাধ্যমে কাজ করে যাচ্ছেন তা অতুলনীয়। তিনি যদি এই ধারাবাহিকভাবে কাজ করে যান তাহলে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ বিশ্বের কাছে সর্বদিক থেকে মডেল প্রাপ্য দেশ হিসেবে পরিচিতি লাভ করবে। সরকারের মোহতী কাজগুলোর জন্য তাকে সার্বিকভাবে সহযোগীতা করার জন্য বাংলাদেশের প্রত্যেক সুনাগরিকগণকে এগিয়ে আসা উচিৎ। বাংলাদেশের প্রত্যেক নাগরিক দেশ গঠনের অংশিদার হিসেবে ভুমিকা রাখতে পারে। সেক্ষেত্রে দেশ গঠনের জন্য তাদের গুরুত্বও অন্য চোখে দেখার মতো নয়। আজ যদি বাংলাদেশের প্রতিটি গ্রামের পাড়ায় বা মহল্লায় প্রত্যেক নাগরিক যদি সরকারের এমন মোহতী উদ্দ্যোগের সাথে নিজেরাই সমাজের ছোট খাটো অনেক কাজ (রাস্তঘাট মেরামত, ব্রীজ সংরক্ষণ) করতো তাহলে সমাজকে তথা দেশকে আরও উন্নয়নের দিকে ধাপিত করা যেত এবং বাংলাদেশের অমিমাংশিত নেতা বাঙ্গালী জাতির পথ প্রদর্শক ও বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্নটি বাস্তবায়ন হতো। দলীয় ভেধাভেধ ভুলে গিয়ে প্রত্যেক সরকারকে এভাবে কাজে সহযোগিতা করা প্রত্যেক সুনাগরিকের দায়িত্ব ও কর্তব্য। কারন বর্হিবিশ্বে যতগুলো দেশ উন্নতি লাভ করেছে তারা এভাবেই কাজ করেছেন। পরিশেষে বাংলাদেশের সকল নাগরিকগণকে একই প্লাটফর্মে দাড়িয়ে সাড়ি বদ্ধ হয়ে দেশের উন্নয়নমূলক কাজ করা।


Spread the love