নবাবগঞ্জে বিভিন্ন কর্মসূচী পালনের মধ্যে দিয়ে ১৬ ডিসেম্বর

158
Spread the love

নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) থেকে মোঃ সাজেদুল ইসলাম (সাগর) : বাঙালির পরাধীনতার শৃঙ্খলমুক্তির দিন আজ। হাজার বছরের প্রতীক্ষা শেষে, বহু কাক্ষিত সেই দিনটির দেখা মিলেছিল ইতিহাসের পাতায় রক্তিম আখরে লেখা এক সংগ্রামের শেষে, ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ৯ মাস সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের পর ঢাকার ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ৪৫ বছর আগে একাত্তরের এই দিনে বর্বর পাকিস্তাানি বাহিনী হাতের অস্ত্র ফেলে মাথা নিচু করে দাঁড়িয়েছিল বিজয়ী বীর বাঙালির সামনে। স্বাক্ষর করেছিল পরাজয়ের সনদে। পৃথিবীর মানচিত্রে অভ্যুদয় ঘটে স্বাধীন বাংলাদেশের। যে অস্ত্র দিয়ে বর্বর পাকিস্তাানি বাহিনী দীর্ঘ ৯ মাসে ৩০ লাখ বাঙালিকে হত্যা করেছে, ২ লাখ মা-বোনের সভ্রমহানি করেছে সেই অস্ত্র পায়ের কাছে নামিয়ে রেখে একরাশ হতাশা এবং অপমানের গ্লানি নিয়ে লড়াকু বাঙালির কাছে পরাজয় মেনে নিয়ে বাংলাদেশ ছাড়ে তারা। সেই থেকে ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস পালিত হয়ে আসছে। এবার জাতি ৪৬তম বিজয় দিবস উদযাপন করবে। বিজয়ের দীর্ঘ সময় পর দেশের মাটিতে অনেক দেশবিরোধী যুদ্ধাপরাধীর বিচার হয়েছে, বাকিদের বিচার চলমান রয়েছে। শহীদের রক্তস্নাত পবিত্র মাটিতে অর্থনৈতিকভাবে অগ্রসরমান বাংলাদেশকে নিয়ে নতুন স্বপ্ন দেখেই আজ বিজয়ের ৪৫ বছর উদযাপন করতে যাচ্ছে গোটা জাতি। এবারের বিজয় দিবস পালিত হবে ভিন্ন প্রেক্ষাপটে। শোক আর রক্তের ঋণ শোধ করার গর্ব নিয়ে উজ্জীবিত জাতি দিবসটি পালন করেবে অন্যরকম অনুভূতিতে। অফুরন্ত আত্মত্যাগ এবং রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এই মহান বিজয়ের ৪৫ বছর পূর্ণ হবে আজ। সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন নিয়ে এক বুক রক্তের বিনিময়ে স্বাধীন হয়েছিল এ দেশ। বিজয়ের এ দিনে সবার অঙ্গীকার সুন্দর ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার। যেসব বৈষম্য থেকে বাংলাদেশের জন্ম সেই বৈষম্যগুলো থেকে এ জাতি বেরিয়ে আসতে আবার দৃঢ় প্রত্যয় নেবে আজ। সারা দেশের ন্যয় বিভন্ন কর্মসূচী পালনের মধ্যে দিয়ে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে দিবসটি উদ্যাপনে হাতে নেয়া কর্মসূচী শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে। দুপুর ১২.০১ মিনিটে স্থানীয় শহীদ মিনার চত্ত্বরে পুষ্পমাল্য অর্পন, ৩১ বার তপদ্ধনীর মাধ্যমে দিবসটির শুভসূচনা শুরু হয়। উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামীলীগ ও তার অঙ্গ সংগঠন, বিএনপি উপজেলা প্রেসক্লাব, দলিল লেখক সমিতি, কেন্দ্রীয় বণিক সমিতিসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ পৃথক পৃথকভাবে পুষ্পমাল্য শহীদ মিনারে অর্পন করেন। বেলা উঠার সাথেসাথেই নবাবগঞ্জ মডেল বহুমূখী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে শুরু হয় কুচকাওয়াজ। সালাম অভিভাদন গ্রহণ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ বজলুর রশীদ, অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইসমাইল হোসেন ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মোঃ দবিরুল ইসলাম। পরে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা সভা হয়েছে। এতে বক্তব্য রাখেন- উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মৌসুমি আফরিদা, কৃষি কর্মকর্তা আবু রেজা মোঃ আসাদুজ্জামান, মহিলা বিষয়ক অফিসার রেবেকা সুলতানা, থানা অফিসার ইনচার্জ, উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র সহ:সভাপতি আমির হোসেন, ডাঃ মোশাররফ হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার, ডেপুটি কমান্ডার এখলাছুর রহমান, বীরমুক্তিযোদ্ধা আফজাল হোসেন, মহিলা ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ শাফিকুল ইসলাম, কারিগরি কলেজের আবু হেনা মোস্তফা কামাল, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার দীপক কুমার বণিক, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা এনামুল হক চৌধুরী, দাউদপুর মহিলা ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক ফিরোজ কবির (প্রিন্স) প্রমুখ। সংবর্ধনা শেষে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বীরমুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের মাঝে উপহার সামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়। দুপুরে বিদ্যালয় মাঠে ক্রীড়া প্রতিযোগীতা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন নির্বাহী অফিসার। এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সা:সম্পাদক শাহ্ জিয়াউর রহমান মানিক, সিনিয়র সহ:সভাপতি সাদেকুল ইসলাম, ৯নং কুশদহ ইউপি চেয়ারম্যান সায়েম সবুজ প্রমুখ। সন্ধ্যায় উপজেলা শিল্পকলা একাডেমীর আয়োজনে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধার আয়োজ করা হয়।


Spread the love