নায়ক সালমান শাহর ১৯ তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

78
Spread the love

Salman-Shahস্টাফ রিপোর্টার : যে কোন মাধ্যমে নাম লিখিয়েই বাজিমাত করতে পারাটা খুব কম মানুষের ভাগ্যেই জোটে। তেমনই এক ভাগ্যবানের নাম সালমান শাহ। ঢাকাই চলচ্চিত্রের রাজপুত্র। প্রথম ছবি ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’-এ দুর্দান্ত পর্দা উপস্থিতি ঘটিয়ে আকাশছোঁয়া সাফল্যকে করে নিয়েছিলেন মুঠোবন্দি। এহেন সাফল্যপ্রাপ্তির বিষয়টিকে ঘিরে সে সময় বলা হতো ‘সালমান এলেন, অভিনয় করলেন, জয় করলেন কোটি দর্শকের হৃদয়’। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ক্ষণজন্মা এ নায়কের ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ১৯৯৬ সালের এ দিনে তিনি চলে যান না ফেরার দেশে। কিন্তু তার দাপুটে অভিনয় তাকে বাঁচিয়ে রেখেছে কোটি ভক্তের হৃদয়ে। সালমান শাহর জন্ম ১৯৭১ সালের ১৯ শে সেপ্টেম্বর নানাবাড়ি দাড়িয়াপাড়া, সিলেটে। তার অভিনয় জীবন শুরু হয় বিটিভিতে শিশুশিল্পী হিসেবে। কিশোর বয়সে তিনি ছিলেন কণ্ঠশিল্পী। তবে তারুণ্যের সূচনালগ্নে চলচ্চিত্রে সম্পৃক্ত হওয়ার পর থেকেই শোবিজ অঙ্গনে তার ঔজ্জ্বল্য বাড়তে থাকে দারুণ গতিতে। দেশজুড়ে সৃষ্টি হয় ‘সালমান ঝড়’। আর সে ঝড়ের তাণ্ডব কোটি ভক্তের হৃদয় আন্দোলিত করে ভাললাগার অবিরাম স্নিগ্ধতা দিয়ে। সালমান চলে যাওয়ার ১৯ বছরেও যার আবহ বয়ে চলেছে নিরন্তর। সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবির মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্রে তার অভিষেক। এরপর স্বল্প সময়ের  ক্যারিয়ারে সালমান শাহ ২৭টি ছবিতে অভিনয় করেন। তার প্রায় প্রতিটি ছবিই ব্যবসাসফল ছিল। তার অভিনীত অন্য ছবিগুলো হচ্ছে- ‘তুমি আমার’, ‘অন্তরে অন্তরে’, ‘সুজন সখী’, ‘বিক্ষোভ’, ‘স্নেহ’, ‘প্রেমযুদ্ধ’, ‘কন্যাদান’, ‘দেনমোহর’, ‘স্বপ্নের ঠিকানা’, ‘আঞ্জুমান’, ‘মহামিলন’, ‘আশা ভালোবাসা’, ‘বিচার হবে’, ‘এইঘর এই সংসার, ‘প্রিয়জন, ‘তোমাকে চাই, ‘স্বপ্নের পৃথিবী, ‘সত্যের মৃত্যু নাই, ‘জীবন সংসার’, ‘মায়ের অধিকার’, ‘চাওয়া থেকে পাওয়া’, ‘প্রেম পিয়াসী’, ‘স্বপ্নের নায়ক’, ‘শুধু তুমি’, ‘আনন্দ অশ্রু’, ‘বুকের ভিতর আগুন’। এসব সিনেমায় তার নায়িকা ছিলেন মৌসুমী, শাবনূর, লিমা. শাবনাজ, বৃষ্টি, শাহনাজ, শ্যামা প্রমুখ। ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’-এ সালমানের সঙ্গে মৌসুমীর অভিনয় এবং এই জুটি পরিচিত হলেও শাবনূরের সঙ্গে তার জুটিবদ্ধ সিনেমার সংখ্যা বেশি। এবং এই জুটিই বেশি জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। বলা যায় সালমান শাহ শাবনূরকে লাইম লাইটে নিয়ে আসেন।এছাড়াও প্রয়াত এই নায়ক আটটি টিভি নাটকে অভিনয় করেন। এগুলো হলো- ‘আকাশছোঁয়া’, ‘দেয়াল’, ‘সব পাখি ঘরে ফিরে’, ‘সৈকতে সারস’, ‘পাথর সময়’, ‘ইতিকথা’, ‘নয়ন’, ‘স্বপ্নের পৃথিবী’ (টেলিফিল্ম)। জনপ্রিয় এ নায়কের জন্ম ও মৃত্যু দিনে বিভিন্ন সংগঠন এবং সংবাদপত্র ও টেলিভিশন বিভিন্ন আয়োজন করে থাকে। আজও দেশের নানা জায়গায় থাকছে তেমন কিছু আয়োজন। এছাড়া টিভি চ্যানেলগুলোতেও প্রচার হবে সালমান শাহকে নিয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠান।


Spread the love