নিখোঁজ ৪ মাদ্রাসা ছাত্রের ৩ জন উদ্ধার সন্ধান মিলেনি নিখোঁজ সোহানুর

82
Spread the love

bgfহবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জ সদর উপজেলার নুরপুর ইউনিয়নের পূর্ব নোয়াগাঁও হাজী সুরুজ আলী হাফিজিয়া মাদরাসা থেকে নিখোঁজ ৪ মাদ্রাসা ছাত্রের মধ্যে ৩ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। দিনব্যাপী পুলিশ ও র‌্যাব অভিযান চালিয়ে শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বানিয়াচঙ্গ উপজেলার বালিখাল গ্রাম থেকে তাদেরকে উদ্ধার করে। উদ্ধারকৃত ৩ শিশু হলো নবীগঞ্জ উপজেলার সুজাপুর গ্রামের আব্দুল্লাহ মিয়ার ছেলে নয়ন (১২), বাহুবল উপজেলার আব্দানারায়ন গ্রামের আব্দুল আহাদের ছেলে ইমতিয়াজ (১২) এবং বাহুবল উপজেলা চারগাঁও গ্রামের আহমদ রশিদ মনুর ছেলে রাফি (১৩)। তবে  হবিগঞ্জ সদর উপজেলার দরিয়াপুর গ্রামের আব্দুল আউয়ালের ছেলে সোহানুর (১২) এখনও নিখোঁজ রয়েছে।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শহিদুল ইসলাম জানান, শনিবার রাতেই শিশুদের নিজ নিজ অভিভাবকের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। পাশাপাশি নিখোঁজ সোহানূরের সন্ধানে পুলিশ ও র‌্যাব তাদের তৎপরতা অব্যাহত রেখেছে।
শায়েস্তাগঞ্জ থানার ওসি ইয়াছিনুল হক জানান, নিখোঁজ হওয়া আজহারুল ইসলাম নয়নের আত্মীয়ের বাড়ি থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়। গতকাল দিনব্যাপী র‌্যাব ও পুলিশ অভিযান চালিয়ে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পর্যালোচনা করে শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বানিয়াচঙ্গ উপজেলার বালিখাল গ্রাম থেকে তাদেরকে উদ্ধার করে। তিনি জানান তাদেরকে কেউ অপহরণ করেনি, তারা স্বেচ্ছায় ওখানে গিয়েছিল।
সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার বিকেলে সদর উপজেলার পূর্ব নোয়াগাঁও হাফিজিয়া মাদ্রাসার ৪ ছাত্র পাঞ্জাবি বানানোর কথা বলে মাদ্রাসা থেকে শায়েস্তাগঞ্জ বাজারে যায়। এরপর থেকে তাদের আর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। নিখোঁজ শিশুদের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায় পরিবারে চলছে কান্নার রুল। এমনকি শুক্রবার রাতে শিশুদের পরিবারের সদস্যরা তাদের আত্মীয়-স্বজনসহ বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও তাদের সন্ধান পাননি। শনিবার বিকেলে এ ঘটনায় শায়েস্তাগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়রি করেন নিখোঁজ শিশু রাফিদের বাবা বাহুবল উপজেলার চারগাঁও গ্রামের বাসিন্দা আহমদ রশিদ মনু মিয়া।
থানায় সাধারণ ডায়রি করার পর নিখোঁজ শিশুদের উদ্ধারে অভিযান শুরু করে পুলিশ ও র‌্যাব। পরে শায়েস্তাগঞ্জ রেল লাইন অফিসের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ পর্যালোচনা করে জানা যায় তারা সিলেট গিয়েছিল। তাৎক্ষনিকভাবে সিলেটে অভিযান চালায় পুলিশ। শনিবার রাতে তাদের বানিয়াচঙ্গ উপজেলার বালিখাল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজ শিশুরা জানিয়েছে, তারা সিলেট শাহজালাল মাজারে গিয়েছিল। তবে তাদের সাথে সোহানুর যায়নি। তারা সিলেট থেকে পারাবত ট্রেনের মাধ্যমে আবার চলে আসে। পরে নয়নের ফুফুর বাড়ি বালিখাল যায়। পুলিশ ও র‌্যাব অভিযান পরিচালনা করে তাদেরকে বালিখাল থেকে উদ্ধার করে।
এ ব্যাপারে হবিগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শহিদুল ইসলাম জানান, আমরা সকালে বিভিন্ন মাধ্যমে খবর পেয়ে নিখোঁজ শিশুদের পরিবার ও মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করে জানতে পারি তারা ৪ জন এক সাথে নিখোঁজ রয়েছে। এরপর থেকেই অভিযান শুরু করা হয়। পরে আমরা জানতে পারি তারা সিলেটের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়েছে, তখন শায়েস্তাগঞ্জ রেল স্টেশনের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে তাৎক্ষণিকভাবে সিলেটে আমাদের টিম পাটিয়ে দেই। পরে জানতে পারলাম তারা নয়নের ফুফুর বাড়ি বানিয়াচঙ্গের বালিখাল গ্রামে আছে, সেখান থেকে উদ্ধার করে তাদের নবীগঞ্জ থানায় নিয়ে আসা হয়। ধারণা করা হচ্ছে তারা স্বেচ্ছায় গিয়েছিল।


Spread the love