নীলফামারী নারী শ্রমিককে গণধর্ষন

61
Spread the love

we26মোঃ তোফায়েল ইসলাম,স্টাফ রিপোর্টার : সংখ্যালঘু পরিবারের এক নারী তিন যুবক কর্তৃক গণধর্ষনের শিকার হয়েছে। সে নীলফামারী উত্তরা ইপিজেডের ভ্যানচুরা ব্যাগ তৈরী শিল্প প্রতিষ্ঠানের নারী শ্রমিক। ঘটনাটি ঘটে, বুধবার রাত ৯টার দিকে  নীলফামারীর সোনারায় ইউনিয়নের বাবুরহাট নামক স্থানে। গণধর্ষিতা ওই তরুনীকে এলাকাবাসী উদ্ধার করে সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করেছে। ওই তরুনী নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার শিমুলবাড়ি ইউনিয়নের আরাজি শিমুলবাড়ি গ্রামের দীনেশ চন্দ্র রায়ের মেয়ে। সে গত তিন মাস থেকে নীলফামারীর উত্তরা ইপিজেডের ভ্যানচুরা শিল্প প্রতিষ্ঠানে নারী শ্রমিক হিসাবে কর্মরত। এ জন্য সে নীলফামারীর সোনারায় ইউনিয়নের বাবুরহাট এলাকায় বিশ্বস্বর মাষ্টারের বাড়ির একটি রুম ভাড়া নিয়ে থাকতো। ধর্ষিতা তরুনী জানায় ঘটনার দিন সে অতিরিক্ত সময় (ওভারটাইম) কাজ করে উত্তরা ইপিজেডে অবস্থিত ব্যাগ তৈরীর শিল্পকারখানা থেকে ভাড়া বাসায় ফিরছিল। তার সাথে ইপিজেডের এ্যাভারগ্রীন শিল্পকারখানার লাইন লিডার মিলন ছিল।  পথে তিনজন বখাটে তাদের পথরোধ করে এবং মিলনকে কিলঘুষি ও ভয় দেখিয়ে ভাগিয়ে দেয়। এরপর ওই তরুনীর মুখ চেপে জোড়পূর্বক পার্শ্ববর্তী একটি লিচুবাগানে নিয়ে গিয়ে অজ্ঞাত তিন যুবক একে একে ধর্ষনের পর পালিয়ে যায়। সে সময় তার আত্তচিকিৎকারে পথচারী দুই ব্যাক্তি এসে তাকে উদ্ধার করে। পরে এলাকাবাসীর সহায়তায় রাতেই হাসপাতালে এনে ভর্তি করে। এদিকে জেলা নারী ফোরামের সভাপতি উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আরিফা সুলতানা লাভলী জানান তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ধর্ষিতার সাথে কথা বলে তার আইনী সহায়তা প্রদানের আশ্বাস প্রদান করেছেন। এ ঘটনায় রাতেই থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই তরুনী নিজে বাদী হয়ে অজ্ঞাত তিন যুবককে আসামী করে নীলফামারী থানায় মামলা দায়ের করে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নীলফামারী থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম জানান আসামীদের খুঁজে বের করে গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।


Spread the love