পার্বতীপুরে স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতাকে গণধোলাই

67
Spread the love

IMG_20151015_063937তারিক আবেদীন,দিনাজপুর : দিনাজপুরে পার্বতীপুর উপজেলায় পুলিশে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে অর্থ আত্মসাৎ ও চাকরি প্রত্যাশী নারীকে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনে বাধ্য করার অভিযোগে উপজেলা অাওয়ামী স্বেছাসেবক লীগের সভাপতিকে অাক্তার হোসেনকে গণধোলাই দিয়েছে ভূক্তভোগী পরিবার। বুধবার বিকাল সাড়ে ৫টায় শহরের নতুন বাজার শহীদ মিনার সড়কে আকতার হোসেনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হাজী ইলেকট্রনিক্সে ঢুকে ধোলাই দেয় ভুক্তভোগীর পরিবারের লোকজন। এসময় অন্তত ১ঘন্টা শহীদ মিনার রোডে যান চলাচল বন্ধ থাকে। খবর পেয়ে পার্বতীপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক আব্দুল মতিনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ভুক্তভোগী নারীর বাবা জানান, ‘পার্বতীপুর উপজেলা স্বেছাসেবক লীগের সভাপতি আকতার হোসেন আমার মেয়েকে পুলিশে চাকরি দেওয়ার কথা বলে তিন লাখ ৬৭ হাজার টাকা নেন। আমার মেয়েকে ঢাকায় নিয়ে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এক সপ্তাহ পর তাকে বাড়িতে নিয়ে আসে। তাকে চাকরির কথা জিজ্ঞেস করা হলে বারবার একই কথা জানায় যে, “ঢাকায় সব আলোচনা হয়েছে। এরপর সার্কুলার হলে পুলিশে ভর্তি করে দেবে।”ওই নারীর বাবা আরও বলেন, “সে আমার মেয়েকে শারীরিক সম্পর্কের বিষয়টি গোপন রাখার জন্য বলে। বিষয়টি কাউকে জানালে চাকরি হবে না বলে হুমকি দেয়। দীর্ঘদিনেও চাকরির কোনো ব্যবস্থা না করা ও শারীরিক সম্পর্কের বিষয়টি তিনি বিভিন্ন লোকজনকে জানালে পরিবারের লোকজন ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে শায়েস্তা করেছে।” পার্বতীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় পুলিশের মধ্যস্থতায় ঘটনাটির নিস্পত্তির চেষ্টা চলছিল।


Spread the love