বগুড়ার ধুনটে ৭০ বছর পর স্কুল পরিদশনে গেলেন প্রতিষ্ঠাতা

59
Spread the love

বানিয়াগাতী Untitled-1কারিমুল হাসান লিখন ,ধুনট বগুড়া : বগুড়ার ধুনট উপজেলার গোপাল নগর ইউনিয়নে ৭০ বছর পর বানিয়াগাতী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদশনে গেলেন বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা। তার এ পরিদশনে এলাকার নানা পেশাজিবীর মানুষ দেখতে আসে তাকে। উপজেলার বানিয়াগাতী প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৯৪২ সালে প্রতিষ্ঠা করেন বানিয়াগাতী গ্রামের বেশ কয়েকজন। তাদের মধ্যে পামুছা তালুকদার ও তার পেরিচিত বন্ধুবর উপজেলার নিমগাছী ইউনিয়নের বেড়েরবাড়ী গ্রামের আব্বাস আলী সরকার (১১৫)। স্কুল প্রতিষ্ঠা করার পর ৩ বছর সেখানে পাঠদান করেন পামুছা তালুকদার ও তার বন্ধুবর আব্বাস আলী সরকার (১১৫)। ১৯৪৫ সালে আব্বাস আলী সরকার ঐ গ্রামের অন্য একজনের উপর পাঠদানের দাইত্ব দিয়ে চলে আসেন। তারপর আর খখনো তিনি বানিয়াগাতীতে পা রাখেন নি। হঠাৎ করেই চলতি বছরে সেপ্টেম্বার ২০১৫ তে বানিয়াগাতী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদশনে যান তিনি। গিয়ে দেখেন তার বন্ধুবর পামুছা তালুকদার মারা গেছেন। কিছুদিন আগে তার ছেলেও মারা গেছেন। দেখা হলো পামুছা তালুকদারের নাতী মাহবুবুর রহমানের সাথে। সাক্ষাত প্রাপ্ত পামুছা তালুকদারের নাতী মাহবুবুর রহমান বানিয়াগাতী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। তিনি স্কুল প্রতিষ্ঠাতা আব্বাস আলী সরকারকে নানা আপ্যায়ন করে পরের দিন স্কুল পরিদশনে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে দেথে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকগন অনেক আনন্দ প্রকাশ করে। এসকল তথ্য গুলি স্কুল পরিদশনকারী আব্বাস আলীর কাছ থেকে পাবার পর, সংবাদ কর্মী বানিয়াগাতী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়েগেলে সেখানকার প্রধান শিক্ষক অনুপস্থিত থাকায় সহকারী শিক্ষক আনোয়ার হোসেন ও মাহবুবুর রহমান তথ্য নিশ্চিত করে বলেন ১৯৪২ সালে প্রতিষ্ঠানটি স্থাপিত হবার পর ০১/০৭/১৯৭৩ ইং সালে সরকারী করন হয়।
উল্লেখ্য যে, স্কুল পরিদশনকারী বয়োজৈষ্ঠ প্রবিণ ব্যাক্তিত্ব জনাব আব্বাস আলী সরকার বগুড়ার ধুনট উপজেলার নিমগাছী ইউনিয়নের বেড়েরবাড়ী গ্রামের মুসলিম পরিবারে মৃত হাজি আছমত উল্ল্যাহ সরকালের তৃতীয় কৃতি সন্তান। তার বয়োস বতর্মান ১১৫ বছর। তিনি কালেরপাড়া ইউনিয়নের সুযোগ্য সফল চেয়ারম্যান মরহুম ওসমান গনি মন্ডলের শশুরিআব্বাস আলী সরকার কমজীবনে শিক্ষকতার দাইত্ব পালন করেন। তিনি ১৯৮৩ সালে শিক্ষকতা থেকে অবসর নেন। কাঁধে দাইত্ব রয়ে যায় পোষ্ট মাষ্টারের। পোষ্ট মাষ্টারের পাশাপাশি তিনি গ্রাম্য মানুষের সামাজিক ও মৌলিক সেবা প্রদানে হোমিও চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন বহুদিন যাবৎ। শুধু তাই নয় কমজীবনের নানা ব্যাস্ততার মাঝেও অবসর সময়ে বিনামূল্যে ছাত্রদের প্রাইভেট পড়াতেন। ১১৫ বছর বয়োসি এই মানুষটি প্রায়ই বেড়েরবাড়ী থেকে ধুনট প্রায় ৩০ কিলোমিটার রাস্তা পায়ে হেটে অবসর ভাতা তুলতে ব্যাংকে যান। শুধু মাত্র পায়ে হাটার কারনেই বিশেষ করে উত্তর ধুনটে প্রবিন ব্যাক্তিরা তাকে এক নামে চিনে ও জানে। এলাকার সামাজিক কাঠামো উন্নয়নে তার আরও অবদার রয়েছে, যা আজ সবার মুখে মুখে।


Spread the love