বগুড়া-নওগাঁ সড়কের নাগর নদের ব্রিজটি এখন মরণফাঁদ

101
Spread the love

image_2078_262667বগুড়া প্রতিনিধি : বগুড়া-নওগাঁ মহাসড়কের দুপচাঁচিয়া উপজেলা সদরের নাগর নদের ব্রিজটির মুখের পশ্চিম ধারে সড়কের আংশিক ভেঙে গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় তা এখন মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। ফলে সড়কটি দিয়ে ঝুঁকি নিয়েই ঢাকাগামী কোচসহ বিভিন্ন যানবাহন চলাচল করছে। যে কোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা রয়েছে। দুপচাঁচিয়া পৌরসভার আওতাধীন উপজেলা সদরের থানা বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন নাগর নদীর উপর সড়ক ও জলপথ বিভাগের ব্রিজটি অবস্থিত। এই বর্ষা মৌসুমের মাঝামাঝি সময় প্রবল বৃষ্টিতে ব্রিজের পশ্চিম-দক্ষিণ পাশ্র্বের সড়কের কিছু অংশ ভেঙে গর্তের সৃষ্টি হয়। একপর্যায়ে বৃষ্টির পানি ঐ গর্তে প্রবেশ করায় তা সুড়ঙ্গের আকার ধারণ করে। স্থানীয়ভাবে গর্তের কাছে লাল কাপড় উড়িয়ে সতর্ক করে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রাখা হলেও তা সংস্কারের জন্য কর্তৃপক্ষ কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। এ ব্যাপারে দুপচাঁচিয়া পৌরসভার মেয়র বেলাল হোসেন গত বুধবার সড়ক ও জলপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীর নিকট পৌর এলাকার বগুড়া-নওগাঁ মহাসড়কের নাগর নদীর ব্রিজ সংলগ্ন ক্ষতিগ্রস্ত সড়কটি দ্রুত মেরামতের জন্য আবেদন করেন। অদ্যাবধি কর্তৃপক্ষ কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় জনমনে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে ঐ ব্রিজের গর্ত দিয়ে এই বর্ষা মৌসুমের সড়কের সকল পানি নদীর ভিতর প্রবেশ করছে। এতে গর্তটি আরও বড় আকার ধারণ করছে এবং ব্রিজের সংযোগ মুখে ফাটল সৃষ্টি হয়েছে। যে কোনো মুহূর্তে ব্রিজের পশ্চিম মুখের সম্পূর্ণ সড়কটি নদীতে ডেবে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এতে সংযোগ সড়কটি সম্পূর্ণ ভেঙে সারাদেশের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার আশঙ্কা বিরাজ করছে। এ ব্যাপারে গতকাল বৃহস্পতিবার সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী কামরুল ইসলামের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, ব্রিজটির সংযোগ সড়কের পশ্চিম পাশ্র্বের মুখে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। বর্ষার কারণে তা সংস্কার করা সম্ভব হয়নি। তবে জনগুরুত্বপূর্ণ সড়কটির যোগাযোগ স্বাভাবিক রাখার লক্ষ্যে ২ থেকে ১ দিনের মধ্যেই ব্রিজের মুখের ক্ষতিগ্রস্ত গর্তটি মেরামতের ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান।


Spread the love