বাল্যবিবাহ রোধে সুশীল সমাজের নাগরিকদের এগিয়ে আসার আহ্বান

82
Spread the love

rabbi00স্টাফ রিপোর্টার : শুধুমাত্র আইন করে একা সরকারের পক্ষে দেশের বাল্য বিবাহ রোধ করা সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া। তিনি বলেন, এটি রোধে দেশের প্রতিটি নির্বাচনী এলাকায় সংসদ সদস্যদেরকে জনগনের মধ্যে সচেতনতার আলো ছড়িয়ে দিতে হবে। তাহলেই বাল্যবিবাহের মত সামাজিক ব্যাধি সমাজ থেকে নির্মূল করা সম্ভব হবে। সোমবার জাতীয় সংসদ ভবনের শপথ কক্ষে জাতীয় সংসদ সচিবালয় ও ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়েনের (আইপিইউ) যৌথ উদ্যোগে ক্যাপাসিটি বিল্ডিং ফর এড্রেসিং চাইল্ড মেরেজ এন্ড বার্থ এন্ড মেরেজ রেজিস্ট্রেশন শীর্ষক কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব মো. আশরাফুল মকবুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন হুইপ মো. শাহাব উদ্দিন, সংসদ সদস্য প্রফেসর মো. হাবিবে মিল্লাত, পীর ফজলুর রহমান, নুরজাহান বেগম, ফজিলাতুন নেসা বাপ্পী, ওয়াসেকা আয়েশা খান, ফরহাদ হোসেন, ফজিলাতুন্নেসা ইন্দিরা, সফুরা বেগম ও উম্মে কুলসুম স্মৃতি এবং আইপিইউ’র কনসালটেন্ট ব্র্রিজিত ফিলিয়ন। বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে সরকারের পাশাপাশি এনজিওসহ সুশীল সমাজের নাগরিকদের একযোগে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে ডেপুটি স্পিকার বলেন, এমডিজি অর্জনে বাংলাদেশ অভাবনীয় সাফল্য দেখিয়েছে এবং এখন উন্নত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে এসডিজি অর্জনের জন্য বাংলাদেশ প্রস্তুত। এসডিজি অর্জনের ক্ষেত্রে বাল্যবিবাহসহ অন্যান্য যেসব সামাজিক প্রতিবন্ধকতা রয়েছে সেগুলো চিহ্নিত করে নির্মূল করতে হবে। তিনি বলেন, প্রতিটি নাগরিকের জন্ম নিবন্ধন সনদ থাকা প্রয়োজন। বিবাহের সময় জন্ম নিবন্ধন সনদ দেখে বর-কনের সঠিক বয়স নিরূপন করে বিবাহ রেজিস্ট্রেশন করলে বাল্য বিবাহের হার অনেকাংশে কমে যাবে।


Spread the love