মঙ্গলযাত্রার প্রস্তুতি, নির্জন প্রান্তরে থাকতে হবে একবছর

139
Spread the love

image_262285.articleবিডিজাহান ডেস্ক : মঙ্গলগ্রহে গিয়ে থাকতে হবে মাসের পর মাস। চাইলেই, কেউ ভালো লাগছে না বলে একটু ঘুরে আসি বা ক্লাবে গিয়ে হুল্লোড় করে আসি বলতে পারবেন না। বিনোদন তো দূরের কথা, সেখানে পছন্দের খাবারটুকুও মিলবে না। ২০৩০-এ নাসার মঙ্গল অভিযানের আগে বিজ্ঞানীদের মানসিক ও শারীরিকভাবে প্রস্তুত করতে শুরু হলো ‘আইসোলেশন এক্সপিরিরিমেণ্ট’। হাওয়াইয়ের মৌনা লোয়ায় একটি তাঁবুতে একবছর কাটাবেন ছয়জন। খাওয়ার জন্য তাঁদের কাছে থাকবে শুধু গুঁড়ো চিজ, কৌটোর মাছ, আর কিছু শুকনো খাবার। মৌনা লোয়ার যে জায়গাটি তাঁবু ফেলা হয়েছে তার ধারে কাছে কোনো গাছপালা জন্মায় না। আসে না কোনো পশু-পাখি। এমনই জায়গায় একবছর কাটিয়ে মঙ্গল গ্রহে গিয়ে গবেষণা চালানোর জন্য নিজেদের তৈরি করছেন ছয় বিশেষজ্ঞ। এঁদের মধ্যে রয়েছেন একজন ফ্রেঞ্চ জীববিদ, একজন জার্মান প্রকৃতিবিদ, পাইলট, ডাক্তার-সাংবাদিক, মাটি বিশেষজ্ঞ ও আর্কিটেক্ট। এই চারজন আমেরিকার বাসিন্দা। ছয়জনে থাকা শুরু করেছেন মৌনালোয়ার পাণ্ডববর্জিত এক জায়গাতে। গম্বুজাকৃতির যে তাঁবুতে তাঁরা থাকছেন সেটি লম্বায় ২০ ফুট ও চওড়ায় ৩৬ ফুট। প্রত্যেক সদস্যর জন্য সেখানে ছোট ছোট করে ঘর করা আছে। আছে শোওয়ার বিছানা, কাজের টেবিল আর ইণ্টারনেট পরিষেবা। তবে তা সীমাবদ্ধ পরিসরেই থাকবে। বাইরে বেরোতে গেলে পরতে হবে স্পেস স্টেশনে ব্যবহৃত বিশেষ পোশাক।


Spread the love