মডেল ও অভিনেত্রী শখের জীবনের জানা-অজানা অধ্যায়

120
Spread the love

Shokhস্টাপ রিপোর্টার : হালের জনপ্রিয় মডেল ও টিভি অভিনেত্রী আনিকা কাবীর শখ। খুব অল্প সময়ে আপন প্রতিভায় লাইম লাইটে উঠে এসেছেন আনিকা কবির শখ। বাবার নাম শামীম কবির এবং মায়ের নাম শাহিদা কবির। পরিবারের সবাই তাকে আদর করে ‘পুটলি’ বলে ডাকে। মিডিয়ার সর্বত্রই এখন তার বিচরণ। তৈরি করেছেন নতুন ক্রেজ। বাংলাদেশের শোবিজের জনপ্রিয় মডেল শখের প্রথম টিভিনাটকে অভিনয় ২০০২ সালে শিশুশিল্পী হিসেবে ‘স্বাক্ষর’ নামের একটি নাটকে।

বর্তমানে বিভিন্ন নাটকে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে মিডিয়ায় নিয়মিত হয়েছেন মডেল আনিকা কবির শখ। ইদানীং ঈদ ঘিরেই এখন মহাব্যস্ত এ তারকা। কোনো বিশেষ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে নয় বরং নিজের মেধা দিয়েই অনেকের মাঝে শীর্ষস্থান দখল করে নিয়েছিলেন শখ। সমালোচক এবং শুভাকাঙ্খীদের মতে নিজের অবহেলার কারণে সে আসনটি হারিয়ে গেছে, তবে এবার হারানো আসন পুনরুদ্ধারে নামছেন তিনি।

নতুন কাজ সম্পর্কে তিনি বলেন, রাঙ্গামাটি আসার আগে বেশ কিছু নাটকের শুটিং শেষ করে গিয়েছি। এগুলো বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচার হবে। আসলে খুব বেশি নাটকে অভিনয় করিনি। কারণ, একসঙ্গে অনেক কাজ করে আলোচনায় থাকাটা আমি বিশ্বাস করি না। বেশি নাটকে অভিনয় করতে গেলে মানের ওপর প্রভাবটা পড়ার ঝুঁকি থাকে। তাই সব সময় বেছে বেছে কাজ করি।

ঈদের বিশেষ নাটকে অভিনয়ের পাশাপাশি ধারাবাহিকেও নিয়মিত অভিনয় করছেন শখ। বছরের শুরুর দিকে সাগর জাহানের পরিচালনায় ‘মিলার বারান্দা’ ও  ‘মধ্যবিত্ত সুখ অসুখ’ নামে দুটি ধারাবাহিকের কাজ করেছেন।

তবে নাটক দুটির কোনটিই এখনও প্রচারে আসেনি। একই নির্মাতার আরো একটি ধারাবাহিকের শুটিং শুরু করেছিলেন শখ। তবে এখনও সেটির কাজ শেষ হয়নি। পাশাপাশি গত মার্চ মাসে একটি ইলেক্ট্রনিক্স পণ্যের বিজ্ঞাপনের কাজও শেষ করেছেন তিনি।

জন্মসাল ও স্থান :
১৯৯৪ সালের ২৫ অক্টোবর ঢাকার ন্যাশনাল হাসপাতালে জন্মগ্রহন করেন শখ।

প্রাথমিক জীবন :
শখের গ্রামের বাড়ি মুন্সিগঞ্জে। তার শিক্ষা জীবন শুরু হয় গেন্ডারিয়া কিশলয় কচিকাঁচার মেলা স্কুলে। তার বয়স যখন ৪ অথবা ৫, তখন থেকেই তাকে নাচতে দেখা যেত। একা একাই তিনি নাচতেন। নাচের প্রতি শখের এই আগ্রহ দেখে তার বাবা তাকে ভর্তি করিয়ে দেন বাড়ির পাশেই গেন্ডারিয়ার একটি নাচের স্কুলে। সেখান থেকে শিশু একাডেমীতে। খুব দ্রুত নাচের মুদ্রা আয়ত্ব করার কারণে অল্পদিনেই তিনি প্রিয় হয়ে উঠেন নৃত্যশিক্ষকদের কাছে। ২০০৯ সালে তিনি এস এস সি পাশ পরেন।

মডেলিং ক্যারিয়ার :
মডেলিংয়ের মাধ্যমে মিডিয়ায় অভিষেক হয়েছিল শখের। এরপর নাটক এবং চলচ্চিত্রে শুরু তার পদাচারণা শুরু। মডেল হিসেবে প্রথম বিজ্ঞাপনেই চমক তৈরি করেন শখ। তার প্রথম বিজ্ঞাপন ছিল সানসিল্ক (স্টিল অ্যাড)। চলচ্চিত্রের সেই সময়ের সুপারস্টার চিত্রনায়ক রিয়াজের সঙ্গে তাকে অনবদ্য ভঙ্গিতে দেখা যায় একটি কোমল পানীয়ের বিজ্ঞাপনে।

এরপর করেছেন বাংলালিংকের দেশ সিরিজের বেশ কিছু বিজ্ঞাপন। বাংলালিংকের দেশ সিরিজের নাচে-গানে ভরপুর নতুন বিজ্ঞাপনটিতে মডেল হিসেবে শখ সুযোগ পান নাচের মেয়ে বলেই। এই বিজ্ঞাপনটি তার ক্যারিয়ারে নতুন মাত্রা যোগ করে।

বাংলালিংকের সিরিজ বিজ্ঞাপন ছাড়াও শখ বিভিন্ন সময় মডেল হয়েছেন ক্লোজআপ, প্যারাসুট, ফেয়ারনেস ফেয়ার, নকিয়া, ওয়ালটনসহ বেশ কিছু ভালো প্রোডাক্টের। সম্প্রতি আকতার ম্যাট্রেসের একটি বিজ্ঞাপন চিত্রে সুপার মডেল নোবেলের বিপরীতে পারফর্ম করেছেন শখ। মডেল হিসেবে তিনি একবার মেরিল-প্রথমআলো পুরস্কারও পেয়েছেন।

টেলিভিশন তারকা হিসেবে :
শখের প্রথম টিভি নাটকে অভিনয় ২০০২ সালে শিশুশিল্পী হিসেবে ‘স্বাক্ষর’ নামের একটি নাটকে। শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয় করলেও তার প্রথম নাটকের চরিত্রটিই ছিল তাকে ঘিরে। এরপর তিনি অভিনয় করেন কায়েস চৌধুরী পরিচালিত ‘নিক্তি’ নামের একটি নাটকে। এতে আরো ছিলেন তৌকির আহমেদ, আফসানা মিমি, আমজাদ হোসেন সহ আরোও অনেকে। দুটো নাটকেই শখ ছিলেন শিশুশিল্পী।

এরপর শখ অভিনয়ে আসেন একটা লম্বা বিরতির পর। ধারাবাহিক ‘অদ্ভুতুরে’ এর মাধ্যমে বড়দের চরিত্রে প্রথম অভিনয় শুরু। এরপর একে একে রেদোয়ান রনির ‘এফএনএফ’, ইফতেখার ফাহমির ‘ফিফটি ফিফটি’, ‘জবের ব্যাপার’, ‘দিবারাত্রি খোলা থাকে’, মাহফুজ আহমেদের ‘স্টেটমেন্ট’, ‘অল দ্য বেস্ট’, ‘রঙ’, ‘চাঁদের নিজস্ব কোন আলো নাই’ প্রভৃতিতে কাজ করে অভিনেত্রী হিসেবে নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করেন।

বড় পর্দায় :
বড়পর্দায় ২০১০ সালের অক্টোবরে শখের প্রথম ছবি মুক্তি পেয়েছে। চলচ্চিত্রটির নাম ‘বলো না তুমি আমার’। এফআই মানিকের পরিচালনায় এতে শখ অভিনয় করেছেন শীর্ষনায়ক শাকিব খানের বিপরীতে। ছবিটি ব্যবসা সফল হলেও শখকে এরপর প্রায় বছর খানেক নতুন কোনো ছবি কাজ করতে দেখা যায়নি। ২০১২ সালে তিনি তার দ্বিতীয় ছবির কাজ করেন, যা ২০১৩ সালে মুক্তি পায়। ছবির নাম `অল্প অল্প প্রেমের গল্প`। ছবিটিতে শখ অভিনয় করছেন আর একজন খ্যাতনামা মডেল নিলয়ের বিপরীতে।

স্ক্যান্ডালের মুখে  :
নিন্দুকদের মতে প্রভা, চৈতির পর একই ধারাবাহিকতায় মডেল ও অভিনেত্রী আনিকা কবির শখ এর একটি অন্তরঙ্গ ভিডিও ২০১১ সালে ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে পড়ে। ২ মিনিট ৩ সেকেন্ডের এই ভিডিওতে অনেকটা শখের মত দেখতে একটি মেয়ের সঙ্গে পুরুষ সঙ্গীটির মুখ দেখা আবছা ছিলো ভিডিওতে।

তবে সে সময় শখ দাবি করেন, ভিডিওটি তার নয়, তিনি এমন কাজ করেননি। তার সামাজিক জীবন ও ক্যারিয়ার নষ্ট করার জন্য তার মতো দেখতে অন্য কোন মেয়েকে দিয়ে ভিডিওটি তৈরি করিয়ে বাজারে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এই স্ক্যান্ডাল নিয়ে সেসময় সামজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে ব্যাপক তোলপাড় ও কানাঘুষা শুরু হয়।

ভীষণ বিব্রত হয়ে শখ তার বাবার সঙ্গে একটি সংবাদপত্রের অফিসে গিয়ে অভিযোগ করেন। তিনি খুব অল্প সময় হলো মিডিয়াতে এসেছেন। এরই মাঝে তার সাফল্যে ঈর্ষান্বিত হয়ে তাকে নিয়ে অনেকেই ‘গেম’ খেলেছেন। কিন্তু এবার তিনি আর এসব সহ্য করবেন না। শখের বাবা বলেন, “আমি আমার মেয়েকে বাড়ির পাশের লন্ড্রিতেও একা যেতে দেই না। আর মিডিয়াতে কাজ করার সময় আমি না হয় ওর মা সবসময় ওর সঙ্গে থাকি। আমার মনে হয় শখের ক্ষতি করার জন্য কেউ এসব করেছে।”

এরপর  বিজ্ঞাপন চিত্র নিয়ে বেশ ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন এই মডেল। বাংলালিংকের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী নিয়মিত একের পর এক বিজ্ঞাপনে কাজ করছেন তিনি। বাংলালিংক ছাড়াও শখ ওয়ালটন এর বিজ্ঞাপনেও কাজ করেছেন। এছাড়া বিভিন্ন চ্যানেলের জন্য নাটকেও অভিনয় করছেন শখ।

যা পছন্দ :
অবসর সময়ে আনিকা কবির শখ গান শুনতে অথবা বই পড়তে ভালোবাসেন। তার প্রিয় মডেল সাদিয়া ইসলাম মৌ এবং নোবেল। তার প্রিয় অভিনেতা হলেন হুমায়ুন ফরীদি ও আফজাল হোসেন। শখের প্রিয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম।


Spread the love