মণিরামপুরে গায়ে পেট্রোল ঢেলে কলেজ ছাত্রীর আত্মহনন

85
Spread the love

agunমোঃ আসাদুজ্জামান, মণিরামপুর (যশোর) : যশোরের মণিরামপুরের পল্লীতে গায়ে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দিয়ে চম্পা (১৮) নামের এক কলেজ ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। গত শণিবার গভীর রাতে উপজেলার নাদড়া গ্রামে এঘটনা ঘটে। তবে কোন অভিমানে তার এই আত্মহনন তা সঠিকভাবে জানা যায়নি। চম্পা ওই গ্রামের দিনমজুর আবুল কাশেমের মেঝ মেয়ে। সে স্থানীয় ব্যাক সেন্টারে সেলাইয়ের কাজ করত। চম্পার মা ঝর্ণা বেগম জানান, ৫ মেয়ে ছোট এক ছেলে নিয়ে তাদের অভাবের সংসার। শত কষ্টের মধ্যেও তিন মেয়েকে তারা এইসএসসি পাশ করিয়েছেন। এদের মধ্যে বড় ও সেজ মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন। আর মেঝ মেয়ে চম্পা জেলার সদর থানার ভাতুড়িয়া কলেজ থেকে এবছর এইসএসসি পাশ করে সরকারী এমএম কলেজে ভর্তির জন্য আবেদন করেছে। শণিবার তার স্বামী আবুল কাশেম সেজ মেয়ের বাড়িতে বেড়াতে যান। রাত ১০ টার দিকে একসাথে খাবার সেরে চম্পা তার ঘরে ঘুমাতে যায়। পাশের ঘরে ঘুমান মা ঝর্ণা বেগম। রাত  আনুমানিক ১ টার দিকে প্রাকৃতিক ঢাকে সাড়া দিতে উঠেন তিনি। তখন চম্পাকে ডেকে উঠাতে গিয়ে তার ঘরের দরজা খোলা দেখতে পান। এসময় খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে ঘরের সামনে আঙ্গিনায় নারকেল গাছের নিচে চম্পার ঝলসানো লাশ পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার দিলে আশপাশের লোকজন ছুড়ে আসে। এদিকে গতকাল রবিবার সকালে চম্পার পিতা আবুল কাশেম থানায় এসে সংবাদ দিলে এসআই আসাদুজ্জামান ঘটনা স্থলে যান। এসআই আসাদুজ্জামান জানান, আত্মহত্যার সঠিক কারণ জানাযায়নি। চম্পার শোয়ার ঘর থেকে একটি ফায়ার বক্স ও একটি পেট্রোলের বোতল উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।


Spread the love