মিরাজ হত্যায় ৫ জনের ফাঁসি : ৪ জনের যাবজ্জীবন

77
Spread the love

gtfyযশোর প্রতিনিধি : যশোরের ঝিকরগাছার স্কুলছাত্র রিয়াজুল ইসলাম মিরাজ হত্যা মামলায় পাঁচজনের ফাঁসি ও চারজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে খুলনার দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনাল। রোববার খুলনা বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক এমএ রব হাওলাদার এ রায় দেন। মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্তরা হলেন, ঝিকরগাছা উপজেলার লাউজানি গ্রামের আবদুল হক মেম্বরের ছেলে জাহিদ হাসান মিলন, ইউসুফ আলীর ছেলে মো. মহসিন রেজা শাহিন (পলাতক), গোলাম হোসেনে ছেলে মামুন চৌধুরী মুকুল (পলাতক), আবদুল খালেকের ছেলে মো. রুবেল, শুকুর মিয়ার ছেলে মো. সোহাগ। পাঁচ আসামির বিরুদ্ধে আনীত দণ্ডবিধির ৩০২/৩৪ ধারার অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে। একই সঙ্গে প্রত্যেককে পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পাশাপাশি আরো চার আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন, যশোর সদর উপজেলার সুজলপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে ইকবাল হোসেন, নারাঙ্গালী গ্রামের হয়রত আলীর স্ত্রী রাশিদা বেগম জানকি, ঝিকরগাছার লাউজানি গ্রামের নুরুল হকের ছেলে আবুল কাসেম ওরফে কাসু (পলাতক), যশোর সদর উপজেলার নারঙ্গালী গ্রামের আবদুল কাদেরের ছেলে হয়রত আলী (পলাতক)। এদের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। অনাদায়ে এক বছরের সশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে। মিরাজের বাবা মিজানুর রহমান বলেন, হত্যার বিচার দাবিতে আইনের আশ্রয় নিয়েছিলাম। আইনের প্রতি শ্রদ্ধা করি। আদালত তথ্য-প্রমাণে যেটা সঠিক মনে করেছে, সেই রায় দিয়েছে। আদালতের রায়ে আমি সন্তুষ্ট। এসময় তিনি রায় দ্রুত কার্যকরের দাবি জানান। তিনি আরো বলেন, খুনিরা বিভিন্ন সময়ে হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছিল। রায় ঘোষণার পর নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কায় আছি।
উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ২৩ নভেম্বর সদর উপজেলার নারাঙ্গালি গ্রামের খালপাড়া থেকে শিশু মিরাজের মরদেহ উদ্ধার করে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। নিহত মিরাজ ঝিকরগাছা উপজেলার লাউজানি গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে। সে ঝিকরগাছা বিএম হাইস্কুলের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র। ছেলে হত্যার ঘটনায় মিজানুর রহমান বাদী হয়ে যশোর কোতয়ালি থানার অজ্ঞাত আসামিদের নামে মামলা দায়ের করেন।


Spread the love