মুক্তিযোদ্ধাদের বিচার চেয়ে ধৃষ্টতার সীমা ছাড়িয়েছে এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল

87
Spread the love

turin-afrojঢাকা প্রতিনিধি : আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ও সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের সদস্য ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ বলেছেন, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল (আইএ) মুক্তিযোদ্ধাদের বিচার চেয়ে বিবৃতি দেয়ার মাধ্যমে ধৃষ্টতার সীমা ছাড়িয়েছে। আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের কনফারেন্স রুমে মুক্তিযুদ্ধ ও যুদ্ধাপরাধ বিচারের বিরুদ্ধে আইএ’র প্রচারণার বিরুদ্ধে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। তুরিন আফেরোজ বলেন, এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ধৃষ্টতা ছাড়িয়েছে। তারা মুক্তিযোদ্ধাদের বিচার চেয়েছে। যারা আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকার প্রতিষ্ঠায় জীবন বাজি রেখে ১৯৭১ সালে যুদ্ধ করেছেন। এটি একটি স্বীকৃত অধিকার। এজন্য তাদের অপরাধ কি, তা কিন্তু বোধগম্য নয়। তিনি বলেন, এ্যামনেস্টি যুদ্ধাপরাধীদের মানুষ বলে মনে করে, কিন্তু ৩০ লাখ শহীদ, চার থেকে পাঁচ লাখ বীরঙ্গণাকে মানুষ বলে মনে করে না। এক কোটি উদ্বাস্তু, যারা সে সময় ঘর ছাড়তে বাধ্য হয়েছিল, তাদের মানুষ বলে মনে করে না। তাদের যদি মানুষ মনে করতো, তাহলে এ বিষয়ে বিবৃতি কখনোই দিতে পারতো না। তিনি বলেন, যখন পেট্রোল বোমায় সাধারণ মানুষ মারা যায়, তখন তাদের কোনো জোরালো বক্তব্য দেখতে পাওয়া যায়না। ট্রাইব্যুনালের বিচারকদের ওপর হামলা হয়, সেটি তারা মানবাধিকার লঙ্ঘন বলে মনে করে না। তারা একপক্ষীয় মানবাধিকার চর্চায় লিপ্ত এবং আমরা এর প্রতিবাদ জানাই। এ আইনজীবী বলেন, তারা যদি মনে করে এ বিচারে কোনো ধরনের মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে, তাহলে আদালতের পথ খোলা রয়েছে, আইন আছে, তারা যেতে পারেন। তারা আইনের আশ্রয় নেয়ার মাধ্যমে প্রতিবাদ করতে পারেন, কিন্তু এই ধরনের অহেতুক বক্তব্য শুধুমাত্র বিভ্রান্তি ছড়ানো ছাড়া আর কিছুই করতে পারবেনা। ৪ নভেম্বর সেক্টর ফোরামের পক্ষ থেকে আইএ’র সেক্রেটারি জেনারেল বরাবর একটি প্রতিবাদ লিপি পাঠানো হয়। সেখানে তাদের বিবৃতি প্রত্যাহার ও সংশোধনের দাবি জানানো হয়। প্রতিবাদ পাঠানোর সত্যতা নিশ্চিত করে সংগঠনের সেক্রেটারি জেনারেল হারুণ হাবীব বলেন, এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল স্বাধীন সার্বভৌম দেশের বিচার ব্যবস্থার উপর হস্তক্ষেপ করেছে। কেননা, তারা মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারাধীন বিষয়ের উপর বিবৃতি দিয়েছে। আমরা এর প্রতিবাদ জানিয়েছি। ৪ নভেম্বর প্রতিবাদের কপি এ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বরাবর পাঠিয়েছি। সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের ভাইস চেয়ারম্যান লে. কর্নেল (অব.) আবু ওসমান চৌধুরী, লে. জেনারেল (অব.) এম হারুণ অর রশীদ, আনোয়ার উল আলম শহীদ ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি মুহাম্মদ শফিকুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।


Spread the love