রংপুরে চুমকির ধর্ষক হত্যাকারীর ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন

50
Spread the love

cfrdরংপুর প্রতিনিধি : রংপুরের পীরগঞ্জের দুরামিঠিপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১ম শ্রেনীর ছাত্রী তানজিলা খাতুন চুমকির ধর্ষক ও হত্যাকারী রিয়াদ প্রধানের ফাঁসির দাবীতে প্রতিবাদ মিছিল ও মানববন্ধন হয়েছে। শনিবার বিকেলে পীরগঞ্জ উপজেলা সদরে মিছিল শেষে গুলশান মোড়ে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি মকবুল হোসেন সর্দার, চুমকির বাবা-শাজাহান, মা- সুফিয়া বেগম, চাচা- সাদা মিয়া, ৫ম শ্রেনীর ছাত্রী জান্নাতারা খাতুন প্রমুখ। পীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজাউল করিম জানান, ওই ঘটনার প্রধান আসামী রিয়াদ গ্রেফতার হয়েছে এবং ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সে আদালতে স্বেচ্ছায় জবানবন্দী দিয়েছে। অভিযুক্ত রিয়াদের ফাঁসির দাবীতে দুরামিঠিপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, রামনাথপুর গ্রামবাসীসহ ৩ শতাধিক মানুষ ব্যানার ফেষ্টুন নিয়ে উপজেলা সদরে এসে প্রতিবাদ মিছিল ও মানববন্ধন করে।

প্রসঙ্গত, পীরগঞ্জউপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের রামনাথপুর প্রধানপাড়ার শাজাহান আলীর কন্যা তানজিলা খাতুন চুমকি দুরামিঠিপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১ম শ্রেনীতে পড়াশোনা করতো। গত ১৪ জুন বিকেলে প্রতিবেশী প্রভাবশালী মমিন প্রধানের কলেজ পড়ুয়া পুত্র রিয়াদ প্রধান চুমকিকে আম দেওয়ার কথা বলে বাড়ীতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের পর হত্যা করে রিয়াদের শয়ন ঘরেই মেঝেতে লাশ পুঁতে রাখে। ঘটনার ৩ দিন পর ১৭ জুন রিয়াদের জ্যাঠাতো ভাই হাসান আলী প্রধান এবং সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী রিয়াদকে পীরগঞ্জ থানায় সোপর্দ করে। চুমকিকে হত্যার লোমহর্ষক বর্ণনা দিয়ে লাশের অবস্থান জানায় রিয়াদ। পুলিশ ওইদিনই রিয়াদের ঘরের মেঝে খুঁড়ে চুমকির গলিত লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় রিয়াদকে প্রধান আসামী এবং গৃহপরিচারিকা ধলি বেগমকে সহযোগী আসামী করে চুমকির বাবা শাজাহান থানায় হত্যা মামলা করে। পরদিন ১৮ জুন রিয়াদ শিশু চুমকিকে ধর্ষণের পর হত্যা করে লাশ ওই গৃহপরিচারিকার সহায়তায় মেঝেতে পুঁতে রাখার কথা বিজ্ঞ আদালতে স্বীকার করে স্বেচ্ছায় জবানবন্দি দেয়। অপরদিকে ঘটনার ৮ দিন অতিবাহিত হলেও গৃহপরিচারিকাকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।


Spread the love