রাঙামাটিতে আটক ভুয়া সেনা কর্মকর্তাসহ ৫ জন রিমান্ডে

85
Spread the love

রাঙামাটি প্রতিনিধি : রাঙামাটিতে আটক ভুয়া সেনা কর্মকর্তাসহ পাঁচজনকে পুলিশ রিমান্ডে দেয়া হয়েছে। রোববার আটক সবাইকে আদালতে হাজির করলে ওই পাঁচজনের বিরুদ্ধে রিমান্ডের আবেদন জানায় বরকল থানা পুলিশ। পুলিশের করা আবেদনে সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট পরিচয়দানকারী বিভাষ দেওয়ানকে (২১) দুই দিনের এবং তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে চট্টগ্রামের বায়েজিদ এলাকা থেকে আটক অপর চারজনকে এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন রাঙামাটি চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের জৈষ্ঠ বিচারক কাজী মো. মোহসেন আলী। বিভাষ দেওয়ান রাঙামাটি শহরের উত্তর কালিন্দীপুরের বিজন সরণির বাসিন্দা বিকে দেওয়ানের ছেলে। অপর চারজন হলেন, রিটেন চাকমা (২২), জ্ঞান লাল চাকমা (২১), স্মৃতি বিকাশ চাকমা (২৬) ও সোহেল চাকমা (২২)। আদালত সূত্র জানায়, তিন বৌদ্ধ ভিক্ষুসহ আটক অপর ১১ জনের জামিন নামঞ্জুর করে তাদেরকে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। তাদের পক্ষে অ্যাডভোকেট সুস্মিতা খীসাসহ কয়েক আইনজীবী জামিনের আবেদন করেন। আদালত জামিন নামঞ্জুর করে ২৯ মার্চ পরবর্তী শুনানির তারিখ ধার্য্য করেছেন। ওই তারিখে আসামি সবাইকে আবারও আদালতে হাজির করার নির্দেশ দেন আদালত।  উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার তিন বৌদ্ধ ভিক্ষু ও নিজেকে সেনা কর্মকর্তা পরিচয়দানকারী বিভাষ দেওয়ানসহ মোট ১২ জন রাঙামাটির বরকলের শীর্ষ পাহাড় এসএস টিলায় (ফালিতাঙ্যা মোন) বেড়াতে যান। ওই সময় বিভাষ দেওয়ান নিজেকে সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট পরিচয় দেয়ায় তার কথায় সন্দেহ হলে রাঙামাটি ফেরার পথে ১২ জনকে আটক করেন বরকল জোনের বিজিবি সদস্যরা। শুক্রবার তাদেরকে বরকল থানা পুলিশে সোপর্দ করে বিজিবি। আটক অন্যরা হলেন, সুনীতি বিকাশ চাকমা (২১), জেকসন খীসা (২০), মুক্তবীর চাকমা (২২), রিটেন চাকমা (২২), ছন্দসেন চাকমা (৩৯), রোহিত চাকমা (২১), রিপেন চাকমা (২২), রিগেন চাকমা (১৮), বুদ্ধ জ্যোতি শ্রামণ, গিরিমানন্দ স্থবির ও শান্তিপ্রিয় ভিক্ষু। বিভাষ দেওয়ানের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে তার অপর চার সহযোগিকে শনিবার চট্টগ্রামের বায়েজিদ এলাকা থেকে আটক করে বরকল থানা পুলিশে হস্তান্তর করে চট্টগ্রামের র্যাব-৭। শুক্রবার বরকল থানায় মোট ১৬ জনকে আসামি করে সরকারি গোপন আইন ১৯২৩ এবং ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করে পুলিশ। রাঙামাটি কোর্ট পুলিশ পরিদর্শক মো. খালেদ হোসেন বলেন, বরকল থানা পুলিশের আবেদনে ৫ জনকে রিমান্ডে এবং অপর ১১ জনকে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দিয়ে ২৯ মার্চ পরবর্তী শুনানির তারিখ ধার্য্য করেন আদালত।


Spread the love