রাজশাহীতে শীতের পোশাক কিনতে ফুটপাতের দোকানে ক্রেতাদের ভিড়

84
Spread the love

নাজিম হাসান,রাজশাহী থেকে : রাজশাহী মহানগরীতে শীতের দাপটে ফুটপাতে জমে উঠেছে শীতের গরম কাপড়ের কেনাকাটার ধুম। শীতের পোশাক কিনতে ফুটপাতে ভিড় জমাচ্ছেন নিন্ম আয়ের মানুষ।এছাড়া প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ফুটপাতের দোকানগুলোতে দেখা মেলে মধ্যবিত্ত, উচ্চ মধ্যবিত্ত এবং নিম্ন আয়ের মানুষের ভিড় লক্ষ করা যায়। বিভিন্ন শপিং মল ও বিপণি বিতান গুলোর চেয়ে দামে কম হওয়ায় ক্রেতাদের পছন্দ এ দোকান গুলো ভিড় হচ্ছে বেশী। এসব দোকান গুলোতে শীতবস্ত্র ছাড়াও নানা ধরনের কাপড় উঠেছে শহরের বিভিন্ন দোকানে। ফুলহাতা শার্ট,টিশার্ট, ট্রাউজার, মহিলাদের জ্যাকেডসহ টপস আর বিভিন্ন ডিজাইনের কার্ডিগান বা পশমী জামা এছাড়া হাতাকাটা সোয়েটার,লং জ্যাকেট,শাল, মাফলার,উলের মোটা কাপড়,জ্যাকেটসহ নতুন নতুন ডিজায়নের শীতের পোশাক পাওয়া যাচ্ছে। এ সকল শীত বস্ত্রের দাম কম হওয়ায় গ্রাম থেকে শহরে আসা লোকজন আনন্দের সাথে কাপড় চোপড় কিনতে স্বাচ্ছ্যন্দবোধ করছেন। বর্তমানে পুরো মহানগরীরজুড়ে বিভিন্ন স্থানে দোকানগুলো পসরা সাজিয়ে বসেছে শীতবস্ত্রের। পাশাপাশি গরম কাপড় কেনার ধুম পড়েছে নগরীর ফুটপাতের দোকান গুলোতে। বিশেষ করে ফুটপাতে গড়ে ওঠা কাপড়ের দোকান গুলো হচ্ছে শিরোইল,সাহেব বাজার ও জজ কোটর্রের শহিদ মিনারের দোকান গুলোতে ক্রেতাদের ভিড় সবচেয়ে বেশি লক্ষ্য করা গেছে। এখানে জ্যাকেট,কোট,লংকোট,উলের কোট,শর্টকোট, শর্ট জ্যাকেটসহ সব ধরনের পোশাকই পাওয়া যাচ্ছে। গতকাল মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে মহানগরীর শিরোইল ফুটপাতে কাপড় কিনতে আসা চারঘাটের আমজাদ,পুঠিয়ার বেলাল,বাগমারার সবুজ নামের লোকজন জানান, বেশা দামের দোকান গুলোর তুলনায় এখানে অনেক কম দামে ভাল কাপড় পাওয়া যায়। প্রতিবারের মতো এবারও এখান থেকে কাপড় কিনবো ভাবছি। তবে গতবারের চেয়ে শিত বস্ত্রের দাম একটু বেশি। নগরীর শিরোইল এলাকার ফুটপাতের কাপড়ের দোকানগুলোর সামনে দাঁড়িয়ে ছিলেন গৃহবধূ আমেনা বেগম। তিনি জানান, আমার বাচ্চার গতবছরের শীতের পোশাক এবার ছোট হচ্ছে। তাই এবার বাচ্চার জন্য সোয়েটার কিনতে এসেছি। অনেক সুন্দর সুন্দর সোয়েটার এখানে আছে। তাই একটা কিনবো। এদিকে,রাজশাহীতে তাপমাত্রাও কমেছে এখন প্রয়োজন গরম কাপড়। তাই ফুটপাতে এখন বসেছে গরম কাপড়ের পসরা। ক্রেতারা গরম কাপড় কিনছেনও। তবে বিক্রেতারা বলছেন, ব্যবসা গতবছরের চেয়ে খারাপ। শীত যত বাড়বে তাদের বিক্রিও তত বাড়বে।


Spread the love