রাজশাহীর অন্ধ রাজিব গান গেয়ে বহুদূর যেতে চান

115
Spread the love

image_2093_264847রাজশাহী প্রতিনিধি : পায়ে ভর করে বসে দুই হাটুনির মাঝে নিজের তৈরি মাউথপিস। সামনে কলস ও টেপ রেকর্ডার নিয়ে নিজের তৈরি গান গাচ্ছেন রাজিব। দর্শক আনন্দ নিয়ে গান শুনছেন। রাজিবের বাড়ি রাজশাহীর তানোর পৌর সদরের তানোর গ্রামে হলেও গানটি গান রাজশাহী নগরীর সাহেব বাজারে। এ প্রতিবেদক নগরীতে গিয়ে গান ও ছবি ধারণ করে। জন্ম থেকেই রাজিব দৃষ্টি প্রতিবন্ধী হওয়ায় পড়ালেখা শিখতে পারেননি। এ কারণে ছোট থেকেই আন্দাজ করে চলাফেরা করতে হয় তাকে। গরিব পিতা-মাতার সংসারে রাজিব সবার ছোট ছেলে। মায়ের কষ্ট বুঝে ২০ বছর বয়সেই বিয়ে করতে হয় তাকে। বর্তমানে দুই মেয়েসহ স্ত্রী নিয়ে রাজিবের সংসার চলে কলসের গায়ে বাজনা বাজিয়ে। খুব ছোট থেকেই দৃষ্টি প্রতিবন্ধী বাজিব রেডিওর গান শুনে গান গাওয়া শুরু করেন। এভাবে বিভিন্ন পাড়া-মহল্লায় ও চায়ের স্টলে গান গাইতে গাইতে রাজিব এখন গানের অন্ধ শিল্পী হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছেন। তার নিজস্ব তৈরিকৃত গান মোবাইল ফোনে ও বিভিন্ন চায়ের দোকানে বাজতে শোনা যাচ্ছে।
গানকে তিনি এখন পেশা হিসাবে বেছে নিয়েছেন। তানোরের ঐতিহ্য নিয়েও গান তৈরি করেছেন। তার নিজস্ব এসব গান গেয়ে পাড়া ও মহল্লার লোকদের আনন্দ দিয়ে আসছেন। গান গেয়ে প্রতিদিন তিন থেকে চারশ টাকা আয় হয় তার। এভাবে টাকা রোজগার করে বৃদ্ধ পিতা-মাতা তার স্ত্রী সন্তান নিয়ে পাঁচ সদস্যের সংসার চলে রাজিবের। তানোরের এই অন্ধ রাজিব যেতে চান বহুদূর। এ জন্য কোন সুহৃদয় ব্যক্তির অনুপ্রেরণা কামনা করেছেন।


Spread the love