শমসের পদত্যাগ করেনি,অবসর নিয়েছেন সিলেটে ফখরুল

66
Spread the love

fakrul-islamসিলেট প্রতিনিধি : বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, শমসের মবিন দল থেকে পদত্যাগ করেননি। তিনি শারীরিক অসুস্থার কারণে রাজনীতি থেকে অবসরে গিয়েছেন। শমসের মবিন চৌধুরীর অবসরে দলে কোন প্রভাব পড়বে না। গতকাল শুক্রবার বিকাল ৩টায় নগরীর আলিয়া মাদ্রাসাস্থ হোটেল হলি সাইডে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। ফখরুল বলেন, ‘বিএনপি ৩ বার ক্ষমতায় গিয়েছে। সফরভাবে রাষ্ট্র পরিচালনা করেছে। বাংলাদেশের জনগন বিএনপিকে ভালোবাসে। ৩৫ বছর বিএনপি অনেক ঘাত ও প্রতিঘাতের শিকার হয়েছে। চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছে। কিন্তু বিএনপির কোন ক্ষতি হয়নি। বিএনপি থেকে শমসের মবিন চৌধুরী অবসরে যাওয়ায় তিনি যে দায়িত্বগুলো পালন করতেন এই দায়িত্ব পালনের অনেক লোক বিএনপিতে আছে। মির্জা ফখরুল আরো বলেন, ‘বিএনপিতে অনেক কুটনৈতিক রয়েছে। তাই দলে কার্যক্রমে প্রভাব পড়ার কোন সম্ভাবনা নেই।’ সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জাবাবে তিনি বলেন, ‘শমসের মবিন চৌধুরী অবসরে যাওয়ায় আওয়ামী লীগ যে বক্তব্য দিয়েছে এটা তাদের নিজস্ব ব্যাপার। দুই বিদেশী হত্যার ব্যাপারে বিএনপির কোন সম্পকৃতা নেই। প্রধামন্ত্রীসহ আওয়ামী লীগ নেতারা বিএনপি জড়িয়ে যে বক্তব্য দিচ্ছেন তা ভিত্তিহীন। তারা তদন্ত শেষ করার আগেই এ ধরনের মন্তব্য করে গুলাপানিতে মাছ শিকার করতে চাচ্ছেন। তিনি বলেন, বিএনপি হত্যা, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। বিএনপিতে কোন কোন্দল নেই। দুই দিবেশী হত্যার পর বিএনপি নিন্দা জানিয়েছে। তিনি আরো বলেন, দুই বিদেশী হত্যাকা-ের ঘটনায় বিশ্বে দরবাররে দেশের ইমেজ নষ্ট হয়েছে। দেশের এই ক্লান্তিকালে জাতিকে ঐকবদ্ধ করে সবাই মিলে এই পরিস্থিতি মোকাবেলা করা উচিৎ বলে বিএনপি মনে করে। তিনি বলেন, শমসের মবিনের দল ও রাজনীতি থেকে অবসরে পত্র এখনো বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার কাছে যায়নি। তিনি দেশে ফিরে আসার পর উনার অবসরপত্র চেয়ারপার্সনের কাছে দেয়া হবে। শমসের মবিন জিয়ার আদর্শ থেকে সরে গেছে এমন মন্তব্যের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন,‘শহীদ জিয়ার আদর্শ ধারণ করে বিএনপি ৩বার ক্ষমতায় গিয়েছে। বিএনপি এখন পর্যন্ত শহীদ জিয়ার আদর্শ থেকে বিচ্ছুত্ব হয়নি। এটা একান্ত উনার ব্যক্তিগত মন্তব্য। বিএনপি শহীদ জিয়ার আদর্শ নিয়েই সরে যাচ্ছে। বিএনপি একটি বিশাল দল উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিএনপি বাংলাদেশের মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে। সিলেট আসা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি অসুস্থ্য থাকাকালে শাহজালালের মাজার জিয়ারতের মানত করেছিলাম। তাই আজ সিলেট এসেছি। এটা কোন দলীয় সফর নয়।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সিলেট জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম, মহানগরের আহ্বায়ক ডা. শাহরিয়ার হোসেন, সদস্য সচিব বদরুজ্জামান সেলিম, বিএনপি নেতা দিলদার হোসেন সেলিম, এমএ হক, অ্যাডভোকেট আব্দুল গাফ্ফার, আব্দুর রাজ্জাক,  কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন, মিজানুর রহমান চৌধুরী, রেজাউল হাসান কয়েছ লোদী, আলী আহমদ, আবুল কায়ের শামীম, ফরহাদ চৌধুরী শামীম, অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান, আজমল বখত সাদেক,  হুমায়ুন কবির শাহীন, মাহবুব চৌধুরী, মিফতাহ সিদ্দিকী, এমদাদ চৌধুরী, কাউন্সিলর সৈয়দ আবদুল হাদী, মহিলা দল নেত্রী কাউন্সিলর রুকশানা বেগম শাহনাজ, ছামিয়া চৌধুরী,  আব্দুল আহাদ খান জামাল, রেজাউল করিম নাচন, মাহবুবুল হক চৌধুরী, শাকিল মুর্শেদ, ছাত্রদল নেতা এখলাছুর রহমান মুন্না প্রমুখ।
প্রসঙ্গত, শুক্রবার দুপুরে সিলেট আসেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমঙ্গীর। এর পর তিনি হযরত শাহজালাল ও শাহপরাণ মাজার জিয়ারত করেছেন। এ সময় ফখরুলের স্ত্রীও তার সঙ্গে ছিলেন।


Spread the love