শাবি ছাত্রের আত্মহনন

142
Spread the love

attohotta_30847স্টাফ রিপোর্টার : শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্কিটেকচার ২০০৮-০৯ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র শাহরিয়ার মজুমদার আত্মহত্যা করেছেন। জানালার গ্রীলের সাথে বেল্ট পেচিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন বলে তার সহপাঠীরা জানিয়েছেন। তিনি গণজাগরণ মঞ্চের কর্মী বলে পুলিশসহ তার সহপাঠীরা জানিয়েছেন। তাৎক্ষণিকভাবে তার আত্মহত্যার কারণ জানা যায়নি। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তার বন্ধু-বান্ধবরা তার মেসের দরজা ভেঙ্গে তার লাশ উদ্ধার করেন। তবে, লাশ উদ্ধারের সময় শাহরিয়ারের ল্যাপটপ খোলা ছিল বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। কোতোয়ালী থানার ওসি সোহেল আহমদ সিআইডি’র ক্রাইম সিনের ইন্সপেক্টর শাহীনের বরাত দিয়ে জানান, শাহরিয়ার আত্মহত্যা করেছেন। তারা লাশটি ময়না তদন্তের জন্য বৃহস্পতিবার রাত ১টায় ওসমানী মেডিকেল কলেজ মর্গে নিয়ে গেছেন। শাবি’র প্রক্টর অধ্যাপক কামরুজ্জামান চৌধুরী জানান, শাহরিয়ার আর্কিটেকচার বিভাগের ৫ম বর্ষের ছাত্র। বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন সুরমা আবাসিক এলাকার ৪ নং রোডের ৫৪ নম্বর বাসায় একটি মেসে বসবাস করতেন তিনি। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে তার সহপাঠী অন্য মেস মেটরা বাসায় গিয়ে দরজা বন্ধ দেখতে পান। তারা বাসার ভেন্টিলেটর দিয়ে উঁকি মেরে তার লাশ দেখতে পান। এরপর দরজা ভেঙ্গে বাসায় ঢুকেন। খবর পেয়ে কোতোয়ালী থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। তিনি সিআইডির ক্রাইম সিন ও পুলিশ ইনভেস্টিগেশন ব্যুরোকে (পিআইবি) তলব করেন। তারা ঘটনাস্থলে এসে বিভিন্ন আলামত ও পারিপার্শ্বিকতা পরীক্ষা করেন। এরপর রাত ১২টার পর লাশ ময়না তদন্তের জন্য ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। শাহরিয়ারের গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের পাহাড়তলীতে। এদিকে,শাহরিয়ারের মৃত্যু সংবাদ শুনে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. আমিনুল হক ভূঁইয়া এবং অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালসহ শাবির শিক্ষকেরা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন।


Spread the love