শিবগঞ্জের তালিবপুরের জমি সংক্রান্ত বিবাদ মিমাংসা করলেন স্থানীয় ওসি।

56
Spread the love

Logoশফিউল আলম ডিউ মোকামতলা (বগুড়া) প্রাতনিধিঃ বগুড়ার শিবগঞ্জের তালিবপুর গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের নিস্পপত্তি করলেন স্থানীয় থানার অফিসার ইনচার্জ আহসান হাবিব। তাকে সহযোগিতা করেন মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এস, আই শামিম আক্তার, রায়নগর ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ রিজু, এডভোকেট শফিকুল ইসলাম টুকু, সাংবাদিক শফিউল আলম ডিউ সহ আরো গণ্যমান্য ব্যাক্তি বর্গ। গ্রামবাসী ও জমির কাগজ পত্রাদি সুত্রে জানা যায় দেউলী ইউনিয়নের তালিবপুর গ্রামে একাটি মাজার শরিফ আছে যাহা খাদেম হিসেবে দীর্ঘদিন যাবৎ বিলাত আলী, আলতাফ আলী, হায়দার আলী বংশানুক্রমিক ভাবে তত্বাবধান করে আসছিল এবং মাজারের পার্শে ৪.৮০ একর জমি যাহা খাজনা দাখিলা, সি এস, এম আর এবং বর্তমান মাঠ পর্চাসুত্রে বিলাত আলীর উত্তরাধিকারীরা ভোগ দখল করে আসছিল। এমতাবস্থায় ২০০২ সালে অত্র গ্রামের কতিপয় অসাধু ব্যক্তি একত্রিত হয়ে পিরপালের নাম করে উক্ত জমির কাগজ পত্রাদি সঠিক নয় প্রমানের নিমিত্তে আব্দুর ছাত্তারকে বাদি করে আলতাফ আলীকে বিবাদী করে আদালতে মামলা করেন। দীর্ঘ ১৩ বছর মামলা পরিচালিত হবার পর গত জুলাই ২০১৫ মাসে মামলাটির রায় প্রকাশিত হয়। বাদীপক্ষ মামলার পক্ষে উপযুক্ত প্রমানাদি উপস্থাপন করতে ব্যার্থ হলে মাননীয় আদালত কাগজ পত্রাদি সঠিক বলে আলতাফ আলীর পক্ষে রায় দিয়ে মামলাটি খারিজ করে দেন । এমতাবস্থায় গত বৃহস্পতিবার সকাল ৮.৩০ মিঃ বিলাত আলীর ঔরস গণ তাদের দখলীয় জমিতে অবস্থান থাকাকালে উক্ত মামলার বাদি পক্ষের কিছু ভাড়াটিয়া দুরবৃত্ত সহ উক্ত জমি জোর পূর্বক দখলের চেষ্ঠা কালে উভয় গ্রুপের মধ্য সংঘর্সের সৃষ্টি হয় এতে করে উভয় পক্ষের প্রায় ১২ জন গুরুতর আহত হয়। তাদের স্থানিয় শিবগঞ্জ হাসপাতালে ও বগুড়া শজিমেকে ভর্তি করা হয়। এই বিষয় নিয়ে শিবগঞ্জ থানায় উভয়পক্ষ অভিযোগ দায়ের করে। এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে স্থানীয় থানার অফিসার ইনচার্জ আহসান হাবীব মোকামতলা তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ এস আই শামিম আক্তারকে সঙ্গে নিয়ে বিবাদমান উভয়পক্ষকে থানা চত্তরে ডেকে নিয়ে আলোচনায় বসেন। উভয় পক্ষের কাগজপত্র পর্যালোচনা করে আলতাফ আলীর পক্ষের কাগজপত্র ও মামলার রায় সঠিক বলে ঘোষনা দেন। অপর পক্ষের লোকজন তাদের সপক্ষে কোন কাগজ পত্রই আলোচনায় উপস্থাপন করতে পারেনি। তাই শালিসে উপস্থিত ব্যাক্তিবর্গ আলতাফ আলীর উত্তরাধীকারিরা জমি ভোগ দখল করিতে পারিবে বলে ঘোষনা দেন যাহা উভয় পক্ষ মেনে নিয়ে আপোষ মিমাংশা হয়।


Spread the love