শিবগঞ্জে দুর্গা পূজায় নিরাপত্তাকর্মী নিয়োগের নামে ঘুষের বাণিজ্য

96
Spread the love

6 copyশিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধি : শারদীয় দুর্গা পূজার নিরাপত্তাকর্মী নিয়োগ দেওয়ার নাম করে শিবগঞ্জ উপজেলা আনসার ভিডিপি কমান্ডারদের রমরমা ঘুষের বাণিজ্যের অভিযোগ পাওয়া গেছে। আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর হতে শুরু হতে যাচ্ছে হিন্দুদের বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গা পূজা। এপূজাকে সামনে রেখে পূজার সার্বিক নিরাপত্তার জন্য নিয়োগের নিমিত্তে আনসার ভিডিপি সদস্য বাছাই প্রক্রিয়া চলছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা আনসার ভিডিপি কার্যালয়ে গেলে দেখা যায় কার্যালয়ের নিচ তলায় ৩/৪ জন আনসার সদস্য আনসার কমান্ডার ও কর্মকর্তাকে বিভিন্ন ভাষায় গালি-গালাজ করছে, এর কারণ জানতে চাইলে সৈয়দপুর ইউনিয়নের রেনু বেগম বলেন সৈয়দপুর ইউনিয়ন কমান্ডার হান্নান তার খালা, ভাতিজি, ভাই বৌ, আত্মীয়স্বজনের মধ্যে আনসার সদস্য নিয়োগ দিচ্ছে। গ্রামের অন্য কোন লোককেই নিয়োগ দিচ্ছে না। আর বাকি আনসার সদস্যের কাছ থেকে জনপ্রতি ৫ শত থেকে ৮ শত টাকা করে ঘুষ দাবী করছে। সে বলে এই টাকা না দিলে নিয়োগ দেওয়া যাবে না। আমি হান্নাকে যখন বললাম যে মিটিংয়ে তো আমাদের বলেছে কাউকে  কোন টাকা দেওয়া যাবে না। একথা শুনে হান্নান বলেন, এগুলোর তোমরা কি বুঝ? নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মোকামতলা আনসার ভিডিপি এক কর্মকর্তা বলেন, প্রতি মাসে বর্তমান আনসার ভিডিপি স্যারকে ৫০/১০০ টাকা করে দিয়ে আসছি। এগুলো কথা তো আমরা কাউকে বলতে পারি না, তাছাড়া এই ঘুষের টাকা তিনি যদি না নিতেন তাহলে স্যার এর যথাযথ ব্যবস্থা নিতেন। স্যার এগুলো জেনেও না জানার ভান করে আছেন। এরকম ভাবে প্রতিটি ইউনিয়ন কমান্ডার শারদীয় দুর্গা পূজার নিরাপত্তা কর্মী নিয়োগের নাম করে জনপ্রতি ৫ শত থেকে ৮ শত টাকা করে আদায় করছে বলে তারা জানান। এব্যাপারে উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা সামছুল ইসলামের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, আমি কোন টাকা নেওয়ার খবর জানিনা। আমি মিটিংয়ে বলে দিয়েছি যে, তোমরা কাউকে কোন টাকা দিবে না। তারপরও কেউ যদি এরকম কর্মকান্ডের সাথে জড়িত থাকে আমি তার যথাযথ ব্যবস্থা নিব।


Spread the love