শিবগঞ্জে ১৫ বিঘা জমি দখলকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের তুমুল সংঘর্ষ ॥ আহত ১২

87
Spread the love

picture 10-09-2015মইনুল ইসলাম রকেট/স্ইাদুর রহমান সাজু : মোকাতলা/ মহাস্থান (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ বৃহস্পতিবার বেলা আনুমানিক ৯ টায় বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার দেউলি ইউনিয়নের তালিবপুর গ্রামে  পীর পালের ১৫ বিঘা জমি দখলকে কেন্দ্র করে তালিবপুর পশ্চিমপাড়ার মৃত আলতাফ আলীর    পুত্র হায়দার আলী গ্র“পের সাথে একই গ্রামের পূর্বপাড়ার আইনুদ্দিন পুত্র আব্দুস ছাত্তার গ্র“পের মধ্যে সংঘর্ষে প্রায়  মহিলা সহ প্রায় ১২ জন গুরুতর আহত । শিবগঞ্জ ও বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভতি, পাল্টা পাল্টটি থানায় অভিযোগ।
সরেজমিনে ও অভিযোগ  সুত্র জানা গেছে, উক্ত জমিটি ১৯২২ সালের সিএস/এমআর মোতাবেক খতিয়ান নম্বর-১৭৭, জেএল নং-১৭০, তালিবপুর মৌজার রায় রাধা গোবিন্দ বাহাদুর রায় সাহেবের দানকৃত বোগদাদী পীর সাহেব এর পীরপাল বুড়াপীর সাহেব নামে খতিয়ান মূলে বাংলাদেশ সরকারের ওয়ার্কফ বোর্ড আইন অনুযায়ী একটি ওয়ার্কফ স্টেট সম্পত্তি। কিন্তু হায়দার আলী উক্ত জমিটি আলতাফ আলী আকন্দ সহ তার ওয়ারিশ গণ খাদেম হিসেবে দেখাশোনা করে আসছিল। গত ১৭ বছর পূর্বে এলাকার লোকজন মাজার পরিচালনার জন একটি কমিটি নিবাচন করে আসছিল এতে পূব খাদেম জমিগুলি নিজেদের পৈত্তিক সম্পত্তি বলে জমি দখল নিতে চাইলে আব্দুল আকন্দ  বাদি হয়ে বগুড়ার শিবগঞ্জ সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে ৮৯/০২ নম্বরে একটি মামলা দায়ের করে। এতে জজ আদালত থেে  আদেশ জরি হয় যে বাদি পক্ষে আনীত অত্র  মোকদ্দমাটি ১/২/১৫/২০/২২-২৫ ও ২৮-৩০/৩২-৩৪ নং বিবাদীদের সহিত দোতরফা  সুত্রে অন্যান্যা বিবাদীদের  সাথে একতরফা  সুত্রে শুনানী অন্তে বিনা খরচায় ডিসমিস করা হয়। এতে  আলতাফ আলীর লোক জন জমিটি দখল করতে গেলে উভয় পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ  ঘটে। হাসপাতাল সূত্রে জানাযায়, শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তিকৃতদের মধ্যে মোঃ এনামুল (৬৫) পিতা-ইনতাজ আলী বেড নং-৫, মজনু মিয়া (২৬) পিতা এনামুল, বাবলু (৪৫) পিতা-আজগর বেড নং-২, আজিজার রহমান (৩২) পিতা-গাদলা বেড নং-৫, আশরাফুল (২২) পিতা-ফজলু বেড নং-৪, টুকু (৩৫) পিতা-মৃত মহির উদ্দিন বেড নং-৬, জব্বার (৪০) পিতা-সিরাজ বেড নং-১১, টুকু (৩৮) পিতা-মজিবর বেড নং-৭, মাহবুব (৩০) পিতা-আব্দুল হামিদ বুদু বেড নং-৮, মজিদা (৩৮) পিতা-মৃত মফিজ উদ্দিন। এছাড়াও উন্নত চিকিৎসার জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজে ৩ জনকে স্থানান্তর করা হয়েছে। তারা হলো আবুল হোসেন (৪৫) পিতা-মৃত ফয়জুল্লাহ্, সালেহা (৩৬) স্বামী-মতলেব, মতলেব (৩৮) পিতা-রঞ্জন আলী। ইউপি সদস্য রায়হানুল হক মিটু ও উক্ত গ্রামের আজাদুল ইসলাম জানান, গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে অত্র সম্পত্তির উপর নির্মিত প্রতিষ্ঠান, বাজার, মসজিদ, হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও ঈদগাহ মাঠ সঠিক ভাবে পরিচালনা করার জন্য একটি পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটির বর্তমান সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুস ছাত্তার পিতা-আইনুদ্দিন, সম্পাদকের নাম মনতেজার রহমান গাছু বলে জানা যায়। এব্যাপারে হায়দার আলীর সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, উক্ত সম্পত্তি আমি পৈত্রিক ও ক্রয় সূত্রে প্রাপ্ত ও ভোগ দখল করিয়া আসিতেছি এবং আমার বর্গাচাষীরা জমিতে চাষাবাদ করার সময় হঠাৎ গতকাল আব্দুস ছাত্তার তার দলবল নিয়ে উক্ত জমির উপর হামলা দেয় এবং আমার কিছু চাষীদেরকে তারা মারপিট করায় তারা ব্যাপক হতাহতের স্বীকার হয়। তাদেরকে চিকিৎসার জন্য শিবগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ জমি সংক্রান্ত মালিকানা নিয়ে উল্লেখিত পীরপাল সিএস মোতাবেক গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে বগুড়া চিপ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা করলে পীরপাল বুরো পীরের পক্ষে ডিক্রি জারী হয়। কিন্তু এই ডিক্রীকে হায়দার আলী তার পক্ষের ডিক্রী বলে দাবী করে। এব্যাপারে উভয় পক্ষ শিবগঞ্জ থানায় পাল্টাপাল্টি দুটি অভিযোগ দায়ের করে। এ রিপোর্ট লেখ পর্যন্ত উভয়ের পক্ষের মধ্যে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে। যন কোন মহুর্তে রক্ষক্ষয়ী সংঘর্ষ হতে পারে।


Spread the love