শোকাবহ পরিবেশে বড়াইগ্রাম ট্রাজেডি দিবস পালিত

97
Spread the love

Gurudaspur news & pic-20-10-2015বড়াইগ্রাম (নাটোর) সংবাদদাতা : শোকাবহ পরিবেশের মধ্য দিয়ে শোকসভা, দোয়া মাহফিল, মানববন্ধন ও নীরবতা পালনের মধ্য দিয়ে নাটোরের বড়াইগ্রামের রেজুর মোড়ে ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনায় ৩৮ জন নিহতের প্রথম বার্ষিকী পালিত হয়েছে।
মঙ্গলবার সকাল ১০টায় দুর্ঘটনাস্থলের পাশে বড়াইগ্রাম পৌরসভার উদ্যোগে নিহতদের স্মরণে শোক সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। পৌর মেয়র ইসাহাক আলীর সভাপতিত্বে সভায় পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক সরকার, পৌর জামায়াতের আমীর আবু বকর সিদ্দিক, পৌর সচিব জালাল উদ্দিন, ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোবারক হোসেন টিপু ও আব্দুল বারেক, দুর্ঘটনায় দৃষ্টিশক্তি হারানো সাজেদুর রহমান বক্তব্য রাখেন। পরে নিহতদের আতœার মাগফেরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাত ও তাবারক বিতরণ করা হয়।
অপরদিকে, সকাল ১১টায় দুর্ঘটনাস্থলে বড়াইগ্রাম উপজেলা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে বিশাল মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ, দুর্ঘটনাস্থলে স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ ও নিরাপদ সড়কের দাবীতে আয়োজিত মানববন্ধনকালে প্রেসক্লাব সভাপতি অহিদুল হকের সভাপতিত্বে পৌর মেয়র ইসাহাক আলী, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক সরকার, দুর্ঘটনায় নিহত নিহত প্রভাষক জামালের বড় ভাই ইদ্রিস আলী বাবু, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। মানববন্ধনে উপজেলা সাধারণ সম্পাদক খাদেুমল ইসলামের নেতৃত্বে মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা ও আসাদুল ইসলামের নেতৃত্বে স্বেচ্ছায় রক্তদাতা সংগঠণ জনস্বাস্থ্য কল্যাণ সংঘের প্রতিনিধিরাসহ এলাকার কয়েক শ মানুষ অংশ নেন। মানববন্ধনে নিহতদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।
উল্লেখ্য, ২০১৪ সালের ২০ অক্টোবর বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের বড়াইগ্রামের রেজুর মোড়ে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৩৮ জন নিহত ও কমপক্ষে ৪২ জন আহত হন।

বড়াইগ্রাম ট্রাজেডি দিবসে রেজুর মোড়ে দুর্ঘটনায় আরো দুজন নিহত
নাটোরের বড়াইগ্রামের রেজুর মোড়ে সংঘটিত দেশের সবচেয়ে ভয়াবহ বাস দুর্ঘটনার প্রথম বার্ষিকীতে একই এলাকায় মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় আরো দুজন নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকালে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মোটরসাইকেলের চালক উপজেলার লক্ষীকোল গ্রামের সাবেক পুলিশ অফিসার পিয়ার আলীর ছেলে জয় (১৮) মারা যান। এর আগে সোমবার সন্ধ্যায় জয় ও তার বন্ধু আরিফুল ইসলাম ইদুল (২০) বনপাড়া থেকে মোটর সাইকেলে বাড়ি ফেরার পথে রেজুর মোড়ের পূর্ব পাশে রাস্তা পারাপারের সময় রাজ্জাক মোড় এলাকার মফিজউদ্দিনের স্ত্রী রমিজা বেগম (৬০) কে ধাক্কা দিয়ে নিজেরা ও মহাসড়কে ছিটকে পড়ে। এতে রমিজা বেগম ঘটনাস্থলেই নিহত হন। আহতদের উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জয় মারা যান।


Spread the love