সিংড়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী সহ ৭জন আহত

55
Spread the love

560সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি : নাটোরের সিংড়ায় বসতভিটার জায়গা নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী, ইউপি সদস্য সহ ৭জন আহত, বাড়ীতে অগ্নিসংযোগ, ৪টি গরু, আসবাবপত্র, মালামাল লুট ও পুকুরে বিষ প্রয়োগের ঘটনা ঘটেছে। এতে প্রায় ৫লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সোমবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার সুকাশ ইউনিয়নের জয়কুঁড়ি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এঘটনায় আহতদের সিংড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হলেন, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা বাহার উদ্দিনের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম(৫০),স্থানীয় ইউপি সদস্য ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক (৩৮), ফিরোজ উদ্দিন (৪০), ঈসমাইল হোসেন (৫৮), আকলিমা (৩০), রজব আলী (৩২) ও হামিদা বেগম (৫৮)। এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত সিংড়া থানার এস আই মাহবুব সহ সঙ্গীয় ফোর্স লুট হওয়া মালামাল উদ্ধারে অভিযান পরিচালনা করছিল।
পুলিশ,এলাকাবাসী ও পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে বসতভিটার ২১শতাংশ জায়গা নিয়ে ঈসমাইল ও খবিরের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। সম্প্রতি সমস্যা সমাধানের লক্ষে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও গন্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে একটি শালিস বসে। শালিসে দুপক্ষকে জমির দলিল,প্রমানাদি সহ হাজির এবং উকিলের মাধ্যমে যাচাই বাছাই করে সম্পত্তি ভোগ দখলের সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু প্রতিপক্ষ খবির উদ্দিন শালিসী সিদ্ধান্ত অমান্য করে রবিবার সকালে তার লোকজনদের নিয়ে ঈসমাইলের বাড়ীর চারদিকে বেড়া দেয়। এতে করে জনসাধারনের চলাচলের রাস্তা বন্ধ হয়ে যায়। ওইদিনই দুপুরে ঈসমাইলের ছেলে মুকুল বাদী হয়ে সিংড়া থানার অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ বিকেলে গিয়ে উভয় পক্ষকে শান্তি শৃংখলা বজায় রাখার স্বার্থে এবং সমস্যার সমাধানে আগামী শুক্রবার থানার হাজির হওয়ার নোটিশ দিয়ে আসে। এতে করে প্রতিপক্ষ ক্ষিপ্ত হয়ে রবিবার দিবাগত রাতে ঈসমাইলের ছেলে মুকুলের বাড়ীতে অগ্নিসংযোগ ও পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে। পরের দিন সোমবার সকালে খবির উদ্দিন,আবু হানিফ, মুরশিদুল নেতৃত্বে ১৫/২০জন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আবারো ঈসমাইলের লোকজনের বাড়ীতে অতর্কিত হামলা চালায় এবং বাড়ীর প্রয়োজনীয় কাগজ পত্রাদি, ৪টি গরু, আসবাব পত্র সহ প্রায় ৫লাখ টাকার মালামাল লুট ও ক্ষয়ক্ষতি করে।  এসময় বাধা দিতে গেলে এলোপাথারী ভাবে কুপিয়ে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা বাহার উদ্দিনের স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৫০), স্থানীয় ইউপি সদস্য ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল হক (৩৮), ফিরোজ উদ্দিন (৪০), ঈসমাইল হোসেন (৫৮), আকলিমা (৩০), রজব আলী (৩২) ও হামিদা বেগম (৫৮) কে জখম করে। পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।
মুকুল জানায়, প্রতিপক্ষরা কোরআন শরীফ ও তার ছেলের বই পুস্তক নিয়ে গেছে। বর্তমানে তারা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তিনি আরো জানান, আসামী মুরশিদুল দুর্ধর্ষ সে এর আগে অস্ত্রসহ গ্রেফতার হয়েছিল।
সিংড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাসির উদ্দিন মন্ডল জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। লুট হওয়া মালামাল উদ্ধার ও আসামীদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশ তৎপর রয়েছে। এঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।


Spread the love