সিলেটের বিয়ানীবাজারে যাত্রীবাহী দু’বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ: আহত ৫২, তিন ঘন্টা পর চালক উদ্ধার

66
Spread the love

IMG_20150921_192220_528(1)গোলাপগঞ্জ সিলেট প্রতিনিধি : বিয়ানীবাজারে যাত্রীবাহী দুইটি বাসে মুখোমুখি সংঘর্ষে ৫২ জন যাত্রি আহত হয়েছেন। দুর্ঘটনার তিন ঘন্টা পর বাসী কেটে আহত চালককে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজের জরুরী বিভাগে প্রেরন করা হয়েছে। অবস্থা আশংকা জনক। আজ রোজ সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে বিয়ানীবাজার আদর্শ মহিলা কলেজ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, বিয়ানীবাজার থেকে ছেড়ে যাওয়া ঢাকাগামী ‘এনা’র (ঢাকা মেট্টো ব ১৪-৬৪১২) সাথে বিপরীত থেকে আসা সিলেটগামী যাত্রিবাহী বাসের (সিলেট জ ১১-০৪৮১) মুখামোখি সংঘর্ষ ঘটে। এ সংঘর্ষে সিলেটগামী বাসের সামনের অংশ ভেতরের দিকে একেবারে ধেবে যায়। এতে ওই বাসের চালক মুজম্মীল আলী (৫০) নিজ আসনে আটকা পড়েন। দুর্ঘটনার পর ঢাকা গামী এনার চালক ও হেল্পার পালিয়েছেন। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে বিয়ানীবাজার থানা পুলিশ, বিয়ানীবাজার ফায়ার ও সার্ভিসের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করেন। আহত বাস চালককে উদ্ধার করতে ব্যর্থ হয় ফায়ার সার্ভিসের দায়িত্বশীলরা।
বিয়ানীবাজার ফায়ার সার্ভিস ইউনিটের মহরম আলী বলেন, বাসের সামনের অংশ কেটে চালকে উদ্ধার করতে হবে। এ কাটার যন্ত্রটি আমাদের কাছে নেই। সিলেট থেকে যন্ত্রটি নিয়ে একটি গাড়ি রওয়ানা হয়েছে। গাড়ি পৌছার পর চালককে উদ্ধার করা হবে। আহত চালক যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে দেখে তার সহকর্মী চালকরা প্রথমে দড়িদিয়ে বাসের সামনে অংশ আলগা করার চেষ্টা করেন। এতে ব্যর্থ হলে বিয়ানীবাজার পৌরশহরের একটি ওয়ার্কসপ থেকে ইলেক্ট্রিক কাটার যন্ত্রনিয়ে বাসের সামনের অংশ কেটে চালক মুজম্মীলকে তিন ঘন্টা পর উদ্ধার করেন। স্থানীয় জনতার সাথে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরাও অংশ নেন। তার কমর ও একটি পা ভেঙ্গে গেছে। হাত ও মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন অংশ মারাত্মক ভাবে জখম হয়েছে। চালক মুজম্মীল উপজেলার বৈরাগী বাজারের খশির এলাকার হাবিব আলীর পুত্র।চালক মুজম্মীল ছাড়া গুরুতর আহত লাউতা ইউনিয়নের বাহাদুর পুর এলাকারআবুল কাসেম (২০) কে সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সছে চিকিৎসা দিন রয়েছে মোট ৫২ জন। আহতরা হাত, মাথা, পা সহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত পেয়েছেন।
বিয়ানীবাজার থানার এসআই জসিম উদ্দিন বলেন, ফায়ার সার্ভিসের কাটার যন্ত্র না থাকায় স্থানীয় জনতার সাহায্যে বাসের সামনের অংশ কেটে চালককে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। তার অবস্থা আশংকামুক্ত। এছাড়া দুর্ঘটনা কবলিত দুইটি বাসকে জব্দ করা হয়।


Spread the love