সিলেটে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় যুবক খুন

66
Spread the love

tfg copyসিলেট প্রতিনিধি : ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় সিলেট নগরীর রায়নগর এলাকায় এক যুবক খুন হয়েছেন। নিহত বিপ্লব রায় বিকল (২৯) মেজরটিলা এলাকার বিজয় রায়ের ছেলে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টার দিকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।  এ ঘটনায় বিপ্লবের আরো দুই বন্ধু আহত হয়েছেন। তারা হচ্ছেন-রায়নগর ১৯ নম্বর গলির হরিলাল দাসের ছেলে অনন্ত লাল দাস (২৮) ও রায়নগর সেবক ১৩৩ নম্বর বাসার স্বপন দে’র ছেলে প্রীতম দে (২৬)। নিহতের স্বজনরা জানান, বিপ্লব রায় বিকল দীর্ঘদিন নগরীর রায় নগর এলাকায় বসবাস করেছেন। কিন্তু কয়েক মাস আগে তিনি নগরীর মেজরটিলা এলাকায় চলে যান। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে তার বন্ধু প্রতীম দে ও অনন্ত লাল দাসের সঙ্গে দেখা করতে রায়নগর পয়েন্টে আসেন। এ সময় তারা তিনজন মিলে রায়নগর পয়েন্টেই আড্ডা দিচ্ছিলেন। কিন্তু হঠাৎ করে রাত সোয়া ১২টার দিকে স্থানীয় যুবলীগ নেতা জামশেদ সিরাজ তাদের ডেকে নিয়ে ছুরিকাঘাত শুরু করেন। পরে বিপ্লব রায় বিকল, প্রীতম দে ও অনন্ত লাল দাসকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাত দেড়টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান বিপ্লব রায় বিকল। আহত প্রতীম দে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৪র্থ তলায় ৫ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তবে আহত অনন্ত লাল দাসকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। অনন্ত লাল জানান, বিপ্লব রায় বিকলের ভাতিজির সঙ্গে ইভটিজিং করত যুবলীগ নেতা জামশেদ সিরাজ অনুসারী কয়েকজন যুবক। এ নিয়ে আগেও একবার ঝামেলা হয়েছিল। কিন্তু বিষয়টি মিমাংসা হয় নাই। ওই ঘটনার জের ধরেই জামশেদ সিরাজ তাদের উপর হামলা চালিয়েছেন বলে ধারণা করছেন অনন্ত লাল দাস। তবে জামশেদ সিরাজের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।
এ ব্যাপারে সিলেট কোতোয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহেল আহমদ জানান, রায়নগরে একটি মাডার হয়েছে। তবে কি কারণে হয়েছে তা এখনো জানা যায়নি।


Spread the love