সুনামগঞ্জের আব্দুর জহুর সেতুতে টোল মুক্ত রাখার দাবী ৪টি উপজেলা সহ জেলা সর্বস্থরের জনসাধরনের

63
Spread the love

sunamganjer abdur johur setu-18.10.15জাহাঙ্গীর আলম ভূঁইয়া,সুনামগঞ্জ : সুনামগঞ্জের আব্দুর জহুর সেতুটি চালু হওয়ায় ও টোল উন্মুক্ত থাকায় সবার মনেই ছিল আনন্দ। চালুর পর পর লেগুনা,সিএনজি,প্রাইভ্রেডকার সহ বাড়ায় চালিত হোন্ডা ব্রীজ পার হয়ে সদরে যাত্রী নিয়ে প্রবেশ করে। সম্প্রতি সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপদ (সওজ) বিভাগ টোল আদায়ের কার্যক্রম চালুর করার কারনে ক্ষোভে ফুঁশে উঠছে সর্বস্থরের জনসাধারন। নিয়মিত টোল আদায়ের কার্যক্রম শুরু করার জন্য সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপদ (সওজ) বিভাগ কে নির্দেশনা পাঠিয়েছে দিয়েছে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়। আর সে কারনেই এখন আলোচনা,সমালোচনা কেন্দ্র বিন্দুতে উঠে এসেছে আব্দুর জহুর সেতুতে টোল আদায়ের বিষয়টি। টোল আদায়ের কার্যক্রম বাতিল করার জন্য সহ সংশ্লিষ্ট প্রশাসন,সুনামগঞ্জের সংসদ সদস্যদের জোরালো হস্তক্ষেপ এবং প্রধান মন্ত্রী সুদৃষ্টি কামনা করছে জেলার সুরমা নদীর দু-পাড়ের হাজার হাজার মানুষ সহ ৪টি উপজেলার (তাহিরপুর,জামালগঞ্জ,বিশ্বাম্ভরপুর,ধর্মপাশা,মধ্যনগর) ১০ লাক্ষাধিক জনসাধারন সহ জেলার সর্বস্থরের শ্রমজীবি ও পেশাজীবি মানুষ। জেলার অবহেলিত,কৃষি ভিত্তিক ও দারিদ্র পীরিত উপজেলা হিসাবে পরিচিত হাওর বেষ্টিত সুনামগঞ্জের তাহিরপুর,জামালগঞ্জ,বিশ্বাম্ভরপুর,ধর্মপাশা,মধ্যনগর উপজেলার মানুষ। এই সেতুটি চালু না হওয়ায় সড়ক পথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ছিল জেলার সর্বস্থরের জনসাধারন। অবহেলিত ৪টি উপজেলার বিভিন্ন রাজনৈতিক,সামাজিক ও বিভিন্ন সংঘটন সহ সর্ব স্থরের জনগনের দাবী সেতুটি যেন টোল মুক্ত থাকে ও সেতুটির মধ্যে সন্ধ্যার পর নিরাপত্তার সার্থে সোডিয়াম লাইট স্থাপন করা হয়। জানাযায়-সুনামগঞ্জের আব্দুর জহুর সেতুটি বিভিন্ন বাধাঁ বিপত্তি অতিক্রম করে ১০বছর পর ২০.০৮.১৫ইং বৃহস্পতিবার ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে উদ্ভোধন করবেন মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা। সবাই ভেবেছিল যে এই ব্রীজে টোল আদায় করা হবে না। কিন্তু নির্দেশনা জানিয়ে পাঠানো হয়েছে চিঠি আর পাঠানো চিঠিতে রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে মন্ত্রনালয় সড়ক পরিবহন ও মহা সড়ক বিভাগের নন গেজেটেড সংস্থাপন ও এনটিআর অধিশাখা উপসচিবের স্বাক্ষর রয়েছে। সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপদ বিভাগের প্রকৌশলী  চিঠির বিষয়টি স্বীকার করে জানান-আমরা টোল আদায় করা চিটি পেয়েছি আর সে নির্দেশনা অনুযায়ী টোল আদায়ের কাজ শুরু করব। বিভিন্ন উপজেলা থেকে আসা লোকজন বলেন-ভাই র্দীঘ দিনের স্বপ্ন পূরন হচ্ছে সুনামগঞ্জের আব্দুর জহুর সেতুটি(সুরমা নদীর উপর সেতুটি) চালু হওয়ায়। আমরা ভাটির অঞ্চলের মানুষ আশা করব সেতুটি চালু হওয়ায় যেমন আমাদের উপকার হয়েছে তেমনি টোল মুক্ত থাকলে আমরা হাওরবাসী আর্থিক ভাবে উপকৃত হব। তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল জানান-সুনামগঞ্জ জেলর ৪টি তাহিরপুর,জামালগঞ্জ,র্ধমপাশা,মধ্যনগর,বিশ্বাম্ভরপুর উপজেলার মানুষ খুব অসহায়,দারিদ্র পীরিত ও কৃষি নির্ভর উপজেলার কথা বিবেচনা করে আব্দুর জহুর সেতুটি টোল মুক্ত রাখলে সবাই উপকৃত হবে। জেলা প্রশাসক শেখ রফিকুল ইসলাম জানান-আমরা সরকারী নিয়ম অনুযায়ী সব কিছুই আমরা করব। সরকারী নিয়মের বাহিরে আমাদের কিছুই করার নেই। টোল আদায় না করার জন্য সবাইও চাইছে। আমরাও সে বিষয় টি গুরুত্ব্য সহকারে নিয়ে আলোচনা করব জেলা বাসীর স্বার্থে। সুনামগঞ্জ ৪ আসনের এমপি ফজলুর রহমান মিছবাহ জানান-জেলার হাওর বেষ্টিত উপজেলাবাসীর স্বার্থে আব্দুর জহুর সেতুটিতে টোল মুক্ত রাখার জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ের সাথে কথা বলব এবং জনসাধারনের সুবিধার কথা বিবেচনা করার জন্য আমি আগামী সংসদ অধীবেশনে এই বিষয়টি তুলে ধরব প্রধান মন্ত্রীর কাছে।


Spread the love