সুনামগঞ্জের উৎসাহ-উদ্ধীপনার মধ্যে দূর্গাপুজার আয়োজন চলছে জোরতালে

68
Spread the love

tahirpur news-10.10.15জাহাঙ্গীর আলম ভুঁইয়া,সুনামগঞ্জ : সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে বিপুল উৎসাহ উদ্ধীপনার মধ্য দিয়ে চলছে সনাতন হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপুজার আয়োজন। প্রধান এই উৎসবকে কেন্দ্র করে তাহিরপুর উপজেলার সনাতন হিন্দু ধর্মাবলাম্বীদের মাঝে বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ। সনাতন হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দূর্গা পূজা কে সফল করে তুলতে ইতিমধ্যে সকল কাজ সম্পন্ন করতে শেষ মুহুর্তে ব্যস্ত সময় পার করছেন আয়োজক গন ও কারু শিল্পীরা। দেশের অন্যান্য স্থানের মত তাহিরপুর উপজেলার-তাহিরপুর সদর,বাদাঘাট বাজার,বালিজুরি,শ্রীপুর,আনোয়ারপুর,চাঁনপুর,বড়ছড়া সহ প্রতিটি এলাকার হিন্দু সম্প্রদায়ের মাঝে দূর্গা পূজা কে কেন্দ্র করে বিরাজ করছে সাঁজ সাঁজ রব। সুনামগঞ্জ জেলায় সদর,জামালগঞ্জ,দিরাই,শাল্লা,জগন্নাথপুর,বিশ্বাম্ভরপুরে প্রতি বারের মত প্রতিমা তৈরিতে কারু শিল্পীরা তাদের নিজেস্ব্য শৈল্পীক সৌন্দর্যের নিখুত কারুকার্য প্রদর্শনে সৌন্দর্য,চাকাচিক্য,ভিন্নতা মধ্য দিয়ে সর্বাধিক প্রশংসার অধিকার লাভ করার জন্য চলছে কারু শিল্পী ও মন্ডব সংশ্লিষ্টদের নীরব প্রতিযোগীতা। মন্ডপের সাজ-সজ্জাতেও থাকছে ভিন্নতা। দেবী দূর্গার পাশা পাশি লক্ষী,সরস্বতী,গনেশ,অসুর,মহিষ,কার্তিক,সিংহের মৃন্ময় মূর্তি তৈরিতে আনা হচেছ আধুনিকতার চমক। তার জন্য রাত দিন কঠোর পরিশ্রম করছে সংশ্লিষ্টগন। কোন মন্ডপে দেবী দূর্গার এ বারের আগমন ও গমননের প্রতীকি ঘটনা সহ পৌরাণিক কাহিনীকে নানা আদলে ফুটিয়ে তুলার চেষ্টা চলছে। বিদ্যুৎতের সাহায্যেও ফুটিয়ে তুলার চেষ্টা চলবে দেব রাজ্যের নানা কল্প কাহিনী। কারু শিল্পীরা জানান-প্রতিমা তৈরি করা প্রায় শেষের দিকে কয়েক দিনের মধ্যে সম্পূর্ন্ন শেষ করার পর রং তুলির নিখুঁত আচঁড়ে ফুটিয়ে তুলা হবে প্রকৃত অবয়ব। ফুটিয়ে তুলা হবে নাক,কান,চোখ,মূখ ইত্যাদি। এরপর শুরু হবে পোষাক পরিচ্ছদ-পরিধানের মাধ্যমে আরো আকর্শনীর করার কাজ। এবার তাহিরপুর উপজেলায় ৭টি ইউনিয়নের ১৮টি পূজা মন্ডবে পালিত হবে শারদীয় দূর্গা পূজা। এছাড়াও সুনামগঞ্জ জেলায় সুনামগঞ্জ সদর,জামালগঞ্জ,দিরাই,শাল্লা,জগন্নাথপুর,বিশ্বাম্ভরপুরে ২শতাধিক পূজা মন্ডবে পালিত হবে দূগাপূর্জা। প্রতি বছরের মত এবারও দূর্গা পূজাকে শান্তিপূর্ন,সুশৃংখল ও উৎসব মুখর করার জন্য উপজেলার পূজা উদযাপন কমিটি সহ স্থানীয় এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ,পৌর মেয়র,উপজেলা প্রশাসন,জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে শান্তি শৃংখলা রক্ষায় বিভিন্ন পদক্ষেপ। প্রতি বছর নিরাপত্তার স্বার্থে জেলা-উপজেলা প্রশাসন,পুলিশ প্রশাসন পক্ষ থেকে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহন করা জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন পূজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ। এবারও সংশ্লিষ্ট প্রসাশনের সর্বাতœক সাহায্য,সহযোগীতা ও পাশে থাকার আশাবাদ বক্ত করেন তারা। সুনামগঞ্জ ৪ আসনের এমপি পীর ফজলুর রহমান মিছবাহ জানান-হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান এই উৎসব কে আনন্দমূখর ও স্বার্থক করতে আমরা পক্ষ থেকে সর্বাতœক চেষ্টা করা হবে। আশা করি এবারের দূর্গা পুজা আনন্দ মুখর হবে। তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল জানান-সনাতন হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান উৎসব দূর্গাপূজা সুশৃংখল ও শান্তি পূর্ন রাখতে আমার উপজেলা পরিষদ থেকে সর্বাতক চেষ্টা করব। তাহিরপুর থানা নিবার্হী কর্মকতা মোঃ শহীদুল্লাহ বলেন-দূর্গা পূজায় উপজেলার সর্বত আইন শৃংখলা রক্ষায় আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা করব। কেউ যদি বিশৃংখলা কারে সে যেই হউক তাকে ছাড় দেওয়া হবে না।


Spread the love