সুনামগঞ্জে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে প্রাণ গেল ২ ব্যক্তির

102
Spread the love

nihotসুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জে ছাতক উপজেলার গৌবিন্দঞ্জ সৈদেরগাঁও ইউনিয়নের পীরপুর বাজারে গতকাল শুক্রবার দুপুরে দু’পক্ষের সংঘর্ষে দু’ ব্যক্তি নিহত ও মহিলাসহ ৩৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে ১০ জনকে গুরুতর অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতরা হল পীরপুর গ্রামরে মৃত মাসিক মিয়ার পুত্র বতু মিয়া (৪৫) ও একই গ্রামের শমসর আলীর পুত্র কবির আহমদ (২৩)। এ ঘটনায় পুলিশ ৫ জনকে আটক করেছেন।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পীরপুর গ্রামের মৃত আলতাবুর রহমানের পুত্র লিলু আহমদ মস্তান মেম্বার ও একই গ্রামের মৃত আনফর আলীর পুত্র ময়না মিয়ার মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক বিরোধ চলে আসছে। শুক্রবার দুপুরে পীরপুর বাজারে লিলু আহমদ পক্ষের সেলিম আহমদের সাথে ময়না মিয়া পক্ষের কবির আহমদের কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এক পর্যায়ে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে কবির আহমদ গুরুতর আহত হয়। এ ঘটনার জের ধরে উভয় পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় ঘন্টা ব্যাপী সংঘর্ষে মহিলাসহ ৩৫ ব্যক্তি আহত হয়। গুরুতর আহত কবির আহমদকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তার মৃত্যু ঘটে। আহত বতু মিয়া, লুৎফুর রহমান(২৫), ইব্রাহিম আলী (২৩), হারিছ উদ্দিন(৫০), আনহার মিয়া (৩৫), দবির উদ্দিন(২০). জিতু মিয়া (৩২), জুয়েল আহমদ (২২), ফুলতেরা বেগম (৫৫) ও আফিয়া বেগম ( ৬০) কে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায়ই বতু মিয়ার মৃত্যু ঘটে।
খবর পেয়ে ছাতক থানার ওসি আশরাফুল ইসলাম, এসআই মঞ্জুর মুর্শেদ, চম্পক দাম, শফিকুল ইসলাম, নবগোপাল, কামরুল ইসলাম, এএসআই মলাই মিয়াসহ পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। পরে উপজেলা চেয়ারম্যান অলিউর রহমান চৌধুরী বকুল, ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সুন্দর আলী, আওয়ামী লীগ আহবায়ক লুৎফুর রহমান সরকুম,এডভোকেট ছায়াদুর রহমান ছায়াদ ঘটনাস্থলে যান। ছাতক থানার ওসি আশরাফুল ইসলাম দু’ব্যক্তি নিহত হওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে জানান, বর্তমানে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পীরপুর গ্রামের সেলিম আহমদ, রাজাউর রহমান, শ্যামল, আব্দুল করিম ও আব্দুল কদ্দুছকে আটক করেছে পুলিশ। বিকেলে সুনামগঞ্জের এডিশনাল এসপি আব্দুল মমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।


Spread the love