সেঞ্চুরি হলো না “লিটল বয়” মুমিনুলের

111
Spread the love

2015_10_03_15_15_44_Dhwmxg4JfNut6KUXH1xHLVvJPHvkuM_originalনিজস্ব প্রতিবেদক : বলা যায়, ব্যাট হাতে সময়টা ভালো যাচ্ছিল না মুমিনুল হকের। জাতীয় দলের হয়ে সর্বশেষ তিন টেস্ট ইনিংসে ৩০, ৬ ও ৪০ রান করেছিলেন তিনি। এরপর কর্ণাটক ও ভারতীয় ‘এ’ বিপক্ষে তিন দিনের ম্যাচেও ব্যাট হাতে সুবিধা করতে পারেননি বাংলাদেশ জাতীয় দলের এই বাঁ-হাতি ওপেনার। তবে ১৭তম ওয়ালটন জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) দ্বিতীয় পর্বে চট্টগ্রামের হয়ে রানে ফিরলেন তিনি। রোববার রাজশাহীর শহীদ কামরুজ্জান স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত চার দিনের ম্যাচের প্রথম দিন চট্টগ্রামের হয়ে রাজশাহীর বিপক্ষে ব্যাট হাতে ৯০ রানের ঝকঝকে ইনিংস উপহার দেন মুমিনুল হক। তাইজুল ইসলামের বলে লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে ১০ রানের জন্য সেঞ্চুরি মিসের হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়েন এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান। তার ১০৭ বলের ইনিংসটি ১৪টি চার ও ২টি ছক্কায় সাজানো ছিল। প্রত্যক্ষ, মুমিনুল হক যখন ক্রিজে আসেন তখন ২৯ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে রীতিমতো ধুঁকছিল চট্টগ্রাম। তবে এরপর চতুর্থ উইকেটে ইরফান শুক্কুরকে নিয়ে ১২২ রানের দারুণ এক জুটি গড়ে সফরকারীদের কক্ষপথে ফেরান মুমিনুল। মুমিনুল হকের মতো ইয়াসির আলিও সেঞ্চুরি মিসের হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়েন। ৯১ রান করে সাজঘরে ফেরেন চট্টগ্রামের এই ব্যাটসম্যান। তার ১৩৬ বলের ইনিংসটি ১৫টি চার ও ২টি ছক্কায় সাজানো ছিল। প্রসঙ্গত যে, কর্ণাটকের বিপক্ষে তিন দিনের ম্যাচের উভয় ইনিংসে ব্যর্থতার পরিচয় দেন মুমিনুল হক। প্রথম ইনিংসে ২ রান করার পর দ্বিতীয় ইনিংসে ফিরে যান ২২ রান করে। এরপর ভারতীয় ‘এ’ দলের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসেও (২) ব্যর্থতার ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখেন এই ‘লিটল-বয়’। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৪ রানের ইনিংস উপহার দেন তিনি।
তবে ৯০ রানের ইনিংস টা দারুন খেলেছেন ‘লিটল বয়’ মুমিনুল।


Spread the love